1. support@wordpress.org : Support :
  2. prodipit.webs@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  3. uttam.birganj14@gmail.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০২:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বীরগঞ্জে করোনা সংক্রমণরোধে পথচারীদের মাস্ক বিতরণ চুরির আতঙ্কে বীরগঞ্জের মানুষ, চুরি ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা প্রতিটি গ্রাম শহরে রুপান্তরিত হচ্ছে -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বিরামপুরে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে মাক্স বিতরণ দিনাজপুর দশমাইলে শ্রমিক/যাত্রা ফেডারেশনের নেতা কাজী হারেজ এর স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে শীত উপেক্ষা করে জমে উঠেছে ইউপি নির্বাচনী প্রচার -প্রচারণা বাঙালির আশা ভরসার আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছেন শেখ হাসিনা -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দেয়ার আহবান প্রার্থীর ৭১ মুক্তির লড়াইয়ে শিশু কিশোর দয়ারাম রায় রাবিসাসের সভাপতি নুরুজ্জামান, সম্পাদক নুর আলম কাহারোলে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান এবং পুরুস্কার বিতরন দিনাজপুরে সতধা সমবায় সমিতির উদ্দোগ্যে শীতার্থদের মাঝে কম্বল বিতরন গ্রামীণফোন সেন্টার এখন বীরগঞ্জে ঘোড়াঘাটে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ডোমারে ভোরের দর্পণ পত্রিকার ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

বীরগঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে বৌরানি মাছ

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৪১৬ জন দেখেছেন

 

বীরগঞ্জ,দিনাজপুর থেকে বিকাশ ঘোষঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলার নদ-নদী থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ‘বৌরানি ‘মাছ। এখনো বর্ষাকাল আসে যায় সুস্বাদু বৌরানি মাছ দেখা মিলে না। মৎস্যভান্ডার খ্যাত বীরগঞ্জ পৌরসভার দৈনিক বাজারে মিঠা পানির মাছ বৌরানী দেখা মিলে না। উত্তরঞ্চলের দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তর জানিয়েছেন বৌরানী মাছের দুটি প্রজাতি পাওয়া যায়। যা দেখেন অনেকটা একই ধরনের হলেও দেহের বাহ্যিক বৈশিষ্ট্য ভিত্তিতে এদের পৃথক করা যায়। এই দুটি প্রজাতির বৈজ্ঞানিক নাম ( বেটিয়া ডারিও) এবং( বেটিয়া লাহাচিটা) উত্তরঞ্চলে মাছ দুটি বৌরানীমাছ বা রানী মাছ নামে সুপরিচিত। দেশের অন্যান্য স্থানে মাছ দু’টি বেটি, পুতুল, বেতাঙ্গী ইত্যাদি নাম সুপরিচিত। বৌরানী মাছ দেখতে অত্যন্ত আকর্ষণীয় এবং চ্যাপটা লম্বাটে দেহঅধিকারী। অভয় প্রজাতিরই মাছ আকারে ছোট। চার জোড়া ক্ষুদ্রকৃতি স্পর্শী থাকে বৌরানী মাছে প্রায় সব ধরণের মিঠা পানিতে যেমন -নদ- নদী, খাল-বিল, হাওরে তলাদেশ পরিষ্কার পানিতে বসবাস করতে পছন্দ করে। তবে কখনও কখনও ঘোলাপানিতেও এদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। বীরগঞ্জ ঢেপা নদী, করতোয়া নদীসহ প্রায় সব নদ-নদী, খালবিল জলাশয় একসময় প্রচুর পরিমাণে বৌরানী মাছ পাওয়া যেত। এখন শুধু বর্ষাকালে অতি সামান্য পরিমাণে বৌরানী মাছের দেখা মেলে। এছাড়া দেশের বগুড়া,রাজশাহী, নাটোর, ময়মনসিংহ, সিলেট, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া, পার্বত্য চট্রগ্রামসহ বিভিন্ন জেলার জলাশয় বিশেষ করে নদীতে বৌরানী মাছ উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিদ্য বিভাগের অধ্যাপক ড.নজরুল ইসলাম জানান, ২০০৭ সালের এক গবেষণায় দেখা গেছে, চলবিল সংলগ্ন বিভিন্ন জেলায় মাছের আড়ত বাজারে খুবই স্বল্পসংখ্যক উপস্থিতির মধ্যে বেটিয়া লোহাচিটার পরিমাণ তুলনামূলকভাবে বেটিয়া ডরিও অপেক্ষা বেশি। বৌ বা বৌরানী মাছ সাধারণত: মে থেকে অক্টোবর মাসের মধ্যবতী সময় প্রজনন করে থাকে। বৌরানী মাছ খেতে খুব সুস্বাদু এবং বাজারে এই মাছের বেশি চাহিদা রয়েছে। প্রায় সকল শ্রেণি -প্রেশার ক্রেতাই এই মাছ খুব পছন্দ করেন। অক্টোবরের শেষ থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত বর্ষাকালের শেষে যখন বিল-নদীর পানি কমে যেতে থাকে তখন এরা জেলেদের জালে বেশি ধরা পড়ে। আর এসময়ই বাজারে বৌরানী মাছের সামান্য পরিমাণে উপস্থিতি চোখে পড়ে।

সেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )