1. admin@sabujbanglanews.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. uttam.birganj14@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
বীরগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচার অভিযোগ - সবুজ বাংলা নিউজ
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১১:০১ পূর্বাহ্ন

বীরগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচার অভিযোগ

বার্ত ডেক্স
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৮ মার্চ, ২০২৪

বিকাশ ঘোষ, বীরগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধি:

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ড. এ,কে,এম, মাসুদুল হক জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪ তম জন্মবার্ষিকী ১৭ মার্চ রবিবার কলেজ প্রশাসনের উদ্যোগে অফিসিয়াল কোন পদক্ষেপ বা নোটিশ না থাকার কারণে শিক্ষক, শিক্ষিকা ও ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪ তম জন্মবার্ষিকী পালন না করা সহ দায়িত্ব পালনে অবহেলা,নানা অনিয়ম, অসদাচরণ, স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে তীব্র ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।সংবাদ পেয়ে শনিবার সকালে সরজমিন কলেজ ক্যাম্পাসে গেলে উপজেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, কলেজ শিক্ষক পরিষদের সম্পাদক সহকারি অধ্যাপক মোঃ আমিনুল ইসলাম মিন্টু জানান, জামাতের এজেন্ডা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে অধ্যক্ষ ড. একেএম মাসুদুল হক যোগদানের পর থেকে কলেজে জামাত সমর্থিত শিক্ষকদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তুলেছেন। কলেজে যাতায়াত তার ইচ্ছা মত করে থাকেন।সরকারি নিয়ম নীতি তোয়াক্কা না করায় প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার মান দিন দিন নষ্টের দিকে যাচ্ছে। শিক্ষক কর্মচারীদের সাথেও তার নেই কোন সৌহার্দ্যপূর্ণ যোগাযোগ, চলছে বৈরী আচরণ। ১৭ মার্চ আবারো জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০৪ তম জন্মবার্ষিকী পালনে আনুষ্ঠানিক কর্মসূচি না থাকায় জাতির প্রতি চরম অবমাননা করা হয়েছে।আবারো জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের ঐতিহাসিক ভাষনের তাৎপর্য তুলে ধরে ছাত্র/ছাত্রীদের মধ্যে কোন আলোচনা ও কোন আনুষ্ঠানিক কর্মসুচি পালন করেন নাই। যার তীব্র প্রতিবাদ জানাই।প্রভাষক জাহিদুল ইসলাম ফরহাদ জানায়, কলেজটি জাতির পিতার কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার ২০১৮ সালে কলেজটি জাতীয়করণ করে শিক্ষার মান উন্নয়নে বীরগঞ্জ বাসীকে একটি সরকারি কলেজ উপহার হিসেবে দিয়েছে সেই প্রতিষ্ঠানে জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বরণকরে কোন অনুষ্ঠান যথাযথ মর্যাদায় পালন করা হবে না মেনে নেওয়া যায় না।অধ্যক্ষ ড. এ,কে,এম, মাসুদুল হক এর সাথে যোগাযোগ করলে তাকে কলেজে পাওয়া যায় নাই, অধ্যক্ষের কার্যালয়ে ছিল তালা বন্ধ। ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এসে তার কার্যালয়ের তালা খুলে সাংবাদিকদের সাথে আলাপ কালে ১৭ই মার্চ জাতীয় দিবস ও ঐতিহাসিক ৭মার্চ কর্মসূচি পালন না করায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন।ঘটনাটি জানাজানি হলে এলাকার সুধী সমাজ ও অভিাভাবকদের মধ্যে ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে। শিক্ষার মান উন্নয়ন ও সরকারি কলেজের পরিবেশ ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে অধ্যক্ষ ড. এ.কে.এম. মাসুদুল হক এর অপসারণ সহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে দায়িত্ব পালনে অবহেলা ও নানা অভিযোগ তুলে রবিবার দুপুরে ক্যাম্পাস এলাকায় কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কমিটির আর রাফি রুদ্রের নেতৃত্বে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।