1. admin@sabujbanglanews.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. uttam.birganj14@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
বীরগঞ্জে বসন্ত ও ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে জমজমাট ফুলের বাজার - সবুজ বাংলা নিউজ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

বীরগঞ্জে বসন্ত ও ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে জমজমাট ফুলের বাজার

বার্ত ডেক্স
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

বিকাশ ঘোষ, বীরগঞ্জ(দিনাজপুর)প্রতিনিধি: ফুলের বাজারে ভালোবাসা দিবসের উত্তাপবেড়েছে। সেই সঙ্গে দিনটি ভ্যালেন্টাইনস ডে বা ভালোবাসা দিবস হিসেবে উদ্‌যাপন করা হয়ে থাকে। এ দিনে প্রিয়জনের হাতে ফুল তুলে দিয়ে ভালোবাসা প্রকাশ করেন অনেকে। চুলের খোঁপায় ফুল লাগিয়ে সাজেন তরুণীরা। বসন্তের রঙিন পোশাক ও ফুলের গয়নার সাজে রঙিন হয় দিনটি। পয়লা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে মধ্যে সরগরম হয়ে উঠেছে ফুলের বাজার। পৌরশহরের রাজ ফুল বিতান, অর্পতা ফুল বিতান ও শিমুল ফুল ঘরে বিভিন্ন ধরনের ফুলের পসরা দোকানীরা। তবে এবছর লোকসানের আশঙ্কায় ব্যবসায়ীরা। খুচরা ফুল বিক্রেতার বলছেন ফেব্রুয়ারি মাসের তিন উৎসবকে সামনে রেখে ফুলবাজার জমে উঠেছে। সারাবছর কমবেশি ফুল বেচাকেনা হলেও মূলত হিন্দু ধর্মালম্বীদের সরস্বতী পূজা,বসন্ত বরণ উৎসব, ভ্যালেন্টাইন ডে আর ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সামনে রেখেই জমজমাট হয়ে ওঠে এ ফুলের দোকানগুলো।বীরগঞ্জ শহরের ফুল ব্যবসায়ী রাকিব খান বলেন, বসন্ত বরণ উৎসব, ভালবাসা দিবস আর ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস সামনে রেখে বেচাকেনা বেড়ে যায়। এ বছর উৎপাদন ভালো হয়েছে। ফলে কেবল এ তিন উৎসবেই পৌর শহরের ফুলের দোকানগুলোতে বেচাকেনা বাড়বে বলে আশা করছি। তবে এ বছর বাগান থেকে বেশি দামে ফুল কিনতে হচ্ছে।তিনি বলেন, ভালবাসা দিবসে রঙিন গ্ল্যাডিওলাস, জারবেরা, রজনীগন্ধা ও গোলাপ বেশি বিক্রি হয়। আর গাঁদা ফুল বেশি বিক্রি হয় একুশে ফেব্রুয়ারি ও বসন্ত উৎসবে।বুধবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) পৌরশহরের থানা মার্কেট সংলগ্ন এলাকা ও সেতাবগঞ্জ রোডে ফুলের দোকানগুলো ঘুরে দেখা গেছে, পাইকারি ও খুচরা ফুল বিক্রির পাশাপাশি ফুলের ঝুড়ি, তোড়া, কাগজের কার্টুন, বাঁশের খাঁচা, মালা, ক্রাউন তৈরিতে ব্যবসায়ীরা ব্যস্ত সময় পার করছেন। এসব ফুলের দোকানে কয়েক জাতের গোলাপ, গাঁদা, চন্দ্রমল্লিকা, ডালিয়া, রজনীগন্ধা, জারবেরা, জিপসি, রডস্টিক, কেলেনডোলা, গ্ল্যাডিওলাস, অর্কিড, কসমস, ঝুমকা লতা বিক্রি হচ্ছে।বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে প্রিয়জনকে উপহার দেওয়ার জন্য ফুল কিনতে আসা আরকন পাল জানান, গত বছরের তুলনায় এবছর ফুলের দাম অনেক বেশি বলে মনে হচ্ছে।অর্পিতা ফুল বিতান স্বত্বাধিকারী কনক বিশ্বাস বলেন, বসন্ত বরণ উৎসব ও ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষে বাগানগুলোতে পাইকারি ফুলের দাম বছরের অন্য সময়ের তুলনায় কিছুটা বাড়তি। বীরগঞ্জ উপজেলার পাইকারি বাজারে প্রতি পিস গোলাপ মান ভেদে ২৭ থেকে ৩২ টাকা, মান ভেদে গাঁদা প্রতি মালা ৭০ থেকে ৮০ টাকা, চন্দ্রমল্লিকা ও কেলেনডোলা প্রতি পিস ১৭ থেকে ২২ টাকা, গ্ল্যাডিওলাস প্রতি পিস ৩০ থেকে ৪০ টাকা, জারবেরা প্রতি পিস ৩০ থেকে ৪০ টাকা, জিপসি পরিমাণ অনুযায়ী ২০ থেকে ২২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া জুঁই-বেলি মালা ২৫০-৩০০ টাকা জোড়া বিক্রি হচ্ছে।পৌরশহরের ফুল বাজারের খুচরা ব্যবসায়ীরা জানান, সকাল থেকে বেচাকেনা কম হলেও বেলা ওঠার সাথে সাথে অনেকটা বেড়েছে। অনেক ক্রেতা মনে করেন খুচরা বাজারেও ফুলের দাম বেশি। ফুল কাঁচামাল। পাইকারি বাজারের সঙ্গে খুচরা বাজারের মিল পাওয়া যায় না। তবে দিবস কেন্দ্রীক ফুলের দাম কিছুটা বেড়েছে।

আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।