1. admin@sabujbanglanews.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. uttam.birganj14@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
ঘোড়াঘাটে ফারহানা হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন গ্রেফতার -৩ - সবুজ বাংলা নিউজ
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০২:২৫ অপরাহ্ন

ঘোড়াঘাটে ফারহানা হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন গ্রেফতার -৩

বার্ত ডেক্স
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ আগস্ট, ২০২৩

আনভিল বাপ্পি, স্টাফ রিপোর্টারঃ

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে ফারহানা আক্তার চুমকি (৩৫) হত্যাকাণ্ডের পাঁচদিনের মাথায় হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তার করা হয়েছে হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানসহ তার দুই সহযোগীকে।
গত ২৮ জুলাই, ২০২৩, সকাল অনুমান ০৮.৩০ ঘটিকার সময় ঘোড়াঘাট থানাধীন ১নং বুলাকিপুর ইউপির অন্তগর্ত বুলাকিপুর সিংগানালা গ্রামস্থ মোঃ গোলাপ মিয়া এর বাড়ীর পশ্চিম-দক্ষিণ কোণে কানাগাড়ী হইতে বলগাড়ী গামী পাকা রাস্তা সংলগ্ন জনৈক মোজাম্মেল হক এর আমবাগানের কোণায় একজন অজ্ঞাতনামা মধ্যবয়সী মহিলার লাশ পাওয়ার সংবাদ পাওয়া যায়। থানা পুলিশ ও পিবিআিই টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে অজ্ঞাতনামা মহিলার পরিচয় সনাক্ত করে জয়পুরহাট জেলার মধ্যপাড়া এলাকার মোখলেছুর রহমান (৬৭) কে সংবাদ প্রদান করলে তিনি উক্ত ঘটনার বিষয় এজাহার দায়ের করেন।
এর প্রেক্ষিতে ঘোড়াঘাট থানার মামলা নং-১৭, তাং-২৯/০৭/২০২৩ খ্রিঃ ধারা-৩০২/৩৪ পেনাল কোড ১৮৬০ রুজু করা হয় এবং মামলার তদন্তভার এসআই (নিঃ) আঃ ছালাম এর উপর অর্পন করা হয়।
বৃহস্পতিবার (৩ আগষ্ট) বিকেলে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানিয়েছেন দিনাজপুরের পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহম্মেদ।

পুলিশ সুপার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, ‘নিহত চুমকির প্রথম স্বামী সাথে সংসার চলা অবস্থায় ২০২২ সালে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার ৮নং আওলাই ইপির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে এবং চুমকি তার প্রথম স্বামী এজাজুল হক ওরফে সনিকে তালাক দিয়ে ওই চেয়ারম্যানকে বিয়ে করে। নিহত চুমকিকে বিয়ে করায় সামাজিক ও পারিবারিক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন হতে থাকে আব্দুর রাজ্জাক। সে কারণেই পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী চুমকিকে বিয়ের কথা বলে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলায় ঘোরাফেরা করে ঘোড়াঘাটে আসার কথা বলে চেয়ারম্যান রাজ্জাক। নিহত চুমকি তার কথায় রাজী হওয়ায় গত বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) নিহত চুমকিকে পাঁচবিবি উপজেলা থেকে ভাড়া করা মাইক্রোবাসে করে নিয়ে আসে গাড়িটির চালক এমদাদুল। এরপর পৃথক পৃথক জায়গা থেকে হত্যাকারী চেয়ারম্যান এবং তার সহযোগীরা গাড়িতে উঠে। তারা নিহত চুমকিকে ঘোড়াঘাট উপজেলার রানীগঞ্জ বাজার এলাকায় নিয়ে আসে এবং গাড়ীর মধ্যেই গলায় রশি পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে চুমকিকে হত্যা করে। এরপর চুমকিতে খারাপ মেয়ে বলে আখ্যায়িত করতে মোজামের আম বাগানে চুমকির লাশ ফেলে রেখে চলে যায় তারা।

হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় গ্রেপ্তার তিনজন হলেন, জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার ৮নং আওলাই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক (৫০) এবং তার সহযোগী একই উপজেলার বয়রা-ছাতিনালী গ্রামের মৃত মালেক মন্ডলের ছেলে এমদাদুল হক (৪৮) ও মাইক্রোচালক দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার মরিচা গ্রামের ইয়াকুব আলীর ছেলে এমদাদুল হক (৪৫)।
দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার শাহ ইফতেখার আহম্মেদ পিপিএম নির্দেশনা ও তত্তাবধানে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) আব্দুল্লাহ আল- মাসুম এর পরিকল্পনায়, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার হাকিমপুর সার্কেল শরিফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ, পুলিশ পরিদর্শক(নিঃ) আসাদুজ্জামান, পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ এনামুল হক এবং তদন্তকারী অফিসার এসআই(নিঃ) মোঃ আব্দুস ছালাম এর সাথে বিশেষ টিমের সদস্যরা কয়েকটি জেলার বিভিন্ন জায়গায় ঝটিকা অভিযান শুরু করেন।

তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে ও বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষন করে ক্লুলেস হত্যা মামলার ঘটনা উৎঘাটন ও হত্যার মুল পরিকল্পনাকারী সনাক্ত করনসহ মামলার ঘটনায় ভিকটিম ফারহানা আক্তার চুমকি (৩৫) কে হত্যা কান্ডে ব্যবহৃত একটি নোহা মাইক্রোবাস যাহার রেজি নং-ঢাকা মেট্রো-চ-১১-৯৭৯৬, মোবাইল ফোন,হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত রশ্মি উদ্ধার করা হয়।
এরপর তথ্য প্রযুক্তির সহযোগীতায় ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ বিভিন্ন জেলা থেকে হত্যায় জড়িত চেয়ারম্যানসহ তার সহযোগীদেরকে আটক করে। গ্রেপ্তার তিন আসামীকে বৃহস্পতিবার দিনাজপুর বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।