1. admin@sabujbanglanews.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. uttam.birganj14@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
ঘোড়াঘাটে পুরুষ শূন্য বাড়িতে লুটপাট ভাংচুর সহ অগ্নিসংযোগের অভিযোগ - সবুজ বাংলা নিউজ
বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১২:১২ অপরাহ্ন

ঘোড়াঘাটে পুরুষ শূন্য বাড়িতে লুটপাট ভাংচুর সহ অগ্নিসংযোগের অভিযোগ

বার্ত ডেক্স
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৬ মে, ২০২৩

মোঃ আনভিল বাপ্পি, স্টাফ রিপোর্টার.

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে পুরুষ শূন্য এক বাড়িতে লুটপাট ভাংচুর সহ অগ্নিসংযোগের অভিযোগ উঠেছে।
গত সোমবার দিবাগত রাত আনুমানিক ৩টার সময় ঘোড়াঘাট উপজেলার বলগাড়ী কইপাড়া এলাকার বাবুল আক্তার চৌধুরীর বাড়িতে এ অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে।
ভুক্তভোগী পরিবার ও ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, উপজেলার বলগাড়ী শ্রীচন্দ্রপুর শাহাপাড়া এলাকার মৃত ময়েজ উদ্দিনের ছেলে আবু বক্কর সিদ্দিকের সাথে দীর্ঘদিন থেকে তার আপন ভাই পাশ্ববর্তী গ্রামের বাবুল আক্তার চৌধুরীর সাথে জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল।

এমতাবস্থায় গত ১২ মে শুক্রবার দুপুরে আবু বক্কর সহ তার লোকজন নিয়ে বাবুল আক্তারের লাগানো জমিতে ধান কাটতে আসে। এতে বাবুল আক্তার ও তার পরিবারের লোকজন বাধা দিলে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় আবু বক্কর সিদ্দিক আহত হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মেয়ে মিম আক্তার বাদী হয়ে ঘোড়াঘাট থানায় একটি মামলা দায়ের করে। যাহার মামলা নং-০৫। থানা পুলিশ এ মামলায় বাবুল আক্তার সহ তার ৩ ছেলেকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেন। একই দিন বিকেলে আবু বক্কর সিদ্দিকের লোকজন বাবুল আক্তারের বাড়ির আসবাবপত্র ভাংচুর ও লুটপাট সহ প্রায় ৪ বিঘা জমির ধান কেটে নিয়ে যায়।

এ ঘটনার জেরে গত সোমবার রাত আনুমানিক ৩ টার সময় পুরুষ শূণ্য বাড়িতে কে বা কাহারা বাবুল আক্তার ও তার ছেলের ২টি টিনসেড ঘরে আগুন ধরিয়ে দেয়। খবর পেয়ে ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। একই দিন সকালে প্রতিপক্ষের লোকজন বলগাড়ী শাহাপাড়া এলাকার গোলাপ হোসেন, জিল্লুর রহমান, মোনাজ্জল হোসেন, আনোয়ার হোসেন, সাফি মিয়া ও শাহিন মিয়া সহ আরও অনেকে বাবুল আক্তার ও তার ছেলের লাগানো করলা, পটল ও বিভিন্ন রবি শস্যের ক্ষয়ক্ষতি সহ প্রায় ১ বিঘা জমির ধান কেটে নিয়ে যায়। এ সময় তার বাড়ির লোকজনকে বিভিন্ন ভয়ভীতি ও হুমকী প্রদর্শন করেন। এতে পুরুষ শূণ্য বাড়িতে বাবুুল আক্তারের স্ত্রী, কন্যা ও পুত্র বধু সহ শিশু সন্তানরা অনিশ্চয়তা ও নিরাপত্তাহীনতায় দিন কাটাচ্ছেন।

এ বিষয়ে ঘোড়াঘাট ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ নিরঞ্জন সরকার জানান, থানা পুলিশের মাধ্যমে খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম হই। এতে গোয়াল ঘর সহ ২টি টিনসেড ঘর পুড়ে যায়। পরিবারের লোকজনের সাথে মামলা চলমান থাকায় বিষয়টি তদন্তাধীন রয়েছে।

এ ব্যাপারে ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির জানান, ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ সহ ধান কাটা বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ দেয় নি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

আরও সংবাদ
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।