1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০২:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কাহারোলে মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত দিনাজপুরে শিক্ষা বোর্ডে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৭ তম জন্মবার্ষিকী পালিত দিনাজপুরে শিক্ষা বোর্ডে ১ম দিনে ৬ জনের মনোনয়নপত্র ক্রয় শেখ রাসেল দিবসে পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্রর নানান কর্মসূচী বিরামপুরে উপজেলা প্রশাসন -পৌর প্রশাসন শেখ রাসেল দিবস পালন করে বীরগঞ্জে গরু চুরি নিয়ে আতংকিত পৌরবাসী পূজা মন্ডপে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে বীরগঞ্জে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন বীরগঞ্জে তন্ত্রমন্ত্র দিয়ে সাপ টানার প্রতিযোগিতা বীরগঞ্জ পৌরসভার আয়োজনে “শেখ রাসেল দিবস” উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বেঁচে থাকলে রাজনৈতিক ভাবে শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত অগ্রদূত হত শেখ রাসেল -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জে উপজেলায় চৌধুরী হাট স্কুল মাঠে, ঐতিহ্যবাহী ‘পাতা খেলা’ দেখতে উপচেপড়া ভিড় বীরগঞ্জে শারদীয় দূর্গা পুজা উপলক্ষে আলোচনা সভা ও মটর সাইকেল শো ডাউন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির সবচেয়ে বড় উদাহরণ বাংলাদেশ’ -এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল বীরগঞ্জে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহীর মৃত্যু বীরগঞ্জে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস পালিত

বীরগঞ্জে সম্পন্ন হয়েছে শারদীয় দুর্গা পূজার সকল আয়োজন

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ৩ অক্টোবর, ২০১৯
  • ১১৬ জন দেখেছেন


বীরগঞ্জ, দিনাজপুর থেকে বিকাশ ঘোষ ॥
সারা দেশের ন্যায় দিনাজপুরের বীরগঞ্জেও শুরু হতে যাচ্ছে সনাতন ধর্ম্মালম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। ০৫ অক্টোবর শুক্রবার ষষ্ঠি পূজার মধ্যদিয়ে শুরু হয়ে, ০৫ অক্টোবর সপ্তমী, ০৬ অক্টোবর অষ্টমী, ০৭ অক্টোবর নবমী, ১০ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে পাঁচ দিনের এই উৎসব।বেজে উঠবে ঢাক ঢোল।কাঁসার শব্দে মেতে উঠবে শরতের আকাশ। সবার আয়োজনও প্রায় শেষ। শেষ মুহুর্তের কেনা কাটায় ব্য¯ত সবাই। জামা কাপড় ও পূজার দ্রব্য সামগ্রী কিনতে শহরের বিভিন্ন দোকানেও উপচে পরা ভীর।
হিন্দু সম্প্রদায়ের সর্ববৃহৎ এ ধর্মীয় উৎসবকে ঘিরে ইতি মধ্যেই উপজেলার প্রতিটি মন্ডপ সাজানোর ধুম পড়েছে। প্রতিমা তৈরীর শিল্পীরা তাদের সর্বমেধা দিয়ে দিনরাত কাজ করে শেষ করেছেন প্রতিমা তৈরীর কাজ। নানা রঙে ও তুলির ছোয়ায় সাজিয়ে তুলেছেন তারা তাদের মা দুর্গাকে।প্রতিমায় এনেছেন বৈচিত্র।তাই তো প্রতিমাতেও লেগেছে আধুনিকতার ছোয়া।রাত-দিন পরিশ্রম করে শিল্পীরা তৈরি করছেন দূর্গা, শিব, লক্ষী, স্বরস্বতী, কার্তিক, গণেশ, মহিষ, অসুর, সিংহের মৃন্ময় মূর্তি। প্রতিমার সৌন্দর্য আর চাকচিক্য নিয়ে বিভিন্ন মন্ডপে চলছে নীরব প্রতিযোগিতা।
সুজালপুর বিষ্ণু মন্দির দুর্গা পূজা মন্ডপের কারিগর কান্ত পাল জানান সুষ্ঠ ও সুন্দুর ভাবে কাজ শেষ করতে পারায় তৃপ্তির কথা।তিনি জানান তারা দুই ভাবে কাজ করেন।প্রয়োজনীয় জিনিষ-পাতি নিজে দিয়ে আর শুধু পারিশ্রমিকে। উক্ত প্রতিমা তৈরী করতে তিনি শুধু পারিশ্রমিক নিয়েছেন পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা। সবকিছু সরবরাহ করেছেন পূজা উদযাপন কমিটি। সুজালপুর বিষ্ণু মন্দির দুর্গা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি বাবু নীল রতন সাহা নিপু বলেন, পূজা উদযাপনে সবচেয়ে বেশী ব্যায় হয় ডেকোরেশন ও আলোকসজ্জায়।তা প্রায় লাখ টাকা। পূজা উদযাপনে তাদের প্রস্তাবিত সর্বমোট ব্যায় প্রায় দুই লাখ টাকা।
মডেল স্কুল মাঠে কাচারী পাড়া দুর্গা পূজা মন্ডপের কারিগর গোবিন্দ চন্দ্র রায় জানান সুষ্ঠ ও সুন্দুর ভাবে কাজ শেষ করতে পেরে তিনি খুব আনন্দিত। প্রয়োজনীয় জিনিষ-পাতি নিজে দিয়ে তিনি পারিশ্রমিক নিয়েছেন পঞ্চাশ হাজার টাকা। কাচারী পাড়া দুর্গা পূজা উদযাপন কমিটির সদস্য জওহর লাল সাহা জানান তারাও বেশী ব্যায় করেন ডেকোরেশনে।বিশেষ করে গেটে ও আলোকসজ্জায়, তা প্রায় তিন লাখ টাকা ।
বীরগঞ্জ দুর্গা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ইউ পি চেয়ারম্যান শ্রী মহেশ চন্দ্র রায় ও সাধারন সম্পাদক ইউ পি চেয়ারম্যান গোপাল চন্দ্র শর্মা জানান উপজেলায় এবার ১৫৭ টি পূজা মন্ডপ তৈরী হয়েছে। ।সকলকে শারদীয় শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করে বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। চিরায়ত সম্প্রীতি ও আন্তরিকতায় অন্যান্য বছরের মত এবারো বীরগঞ্জে দূর্গোৎসব জাতি ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকলের মিলন মেলায় পরিনত হবে বলে তাঁরা আশা করেন।

বীরগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ ওয়ারেছ আলী এবং ওসি সাকিলা পারভিন জানান, পূজার সময় বীরগঞ্জের নিরাপত্তা বাবস্থা খুব কড়া করে দেখা হচ্ছে। কাজেই কোনরকম দুশ্চিন্তা বা ভয় পাওয়ার কারন নেই। দুর্গাপুজা মন্ডবে কোন ব্যাক্তি বা গোষ্ঠি বাধা বিঘ্ন সুষ্টি করলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।জঙ্গি হামলা, ছিনতাই, ইভটিজিংরোধ সহ সব অপরাধ প্রতিরোধে প্রতিটি দুর্গাপুজা মন্ডবে থানা পুলিশ, কমিউনিটি পুলিশ, আনসার ও ভিডিপি এবং সেচ্ছাসেবক দল গঠন করে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এ ছাড়াও পুলিশের বিশেষ টহল বাহিনী রাত-দিন টহল দিচ্ছে।
সর্বশেষে, এ পূজাকে হিন্দু মতে বলা হয় অকালবোধন । এই অকালবোধনে শারদীয় দূর্গোৎসবকে ঘিরে নানা আয়োজনে ব্যস্ত হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। তাই নর-নারী, তরুন-তরুণী এমনকি বৃদ্ধ-বৃদ্ধারাও দেবীর আশির্বাদ পাওয়ার আশায় দেবীর আগমনের প্রতিক্ষায়।আর এবারে দূর্গাদেবী নৌকায় চড়ে আগমন করবে এবং দেবীর আগমনে শস্য ও জলবৃদ্ধি হবে বলে বলা হয়েছে হিন্দু শাস্ত্রে ।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Sabuj Bangla News Team