1. support@wordpress.org : Support :
  2. prodipit.webs@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  3. uttam.birganj14@gmail.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চুরির আতঙ্কে বীরগঞ্জের মানুষ, চুরি ঠেকাতে রাত জেগে পাহারা প্রতিটি গ্রাম শহরে রুপান্তরিত হচ্ছে -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বিরামপুরে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে মাক্স বিতরণ দিনাজপুর দশমাইলে শ্রমিক/যাত্রা ফেডারেশনের নেতা কাজী হারেজ এর স্বরণ সভা অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে শীত উপেক্ষা করে জমে উঠেছে ইউপি নির্বাচনী প্রচার -প্রচারণা বাঙালির আশা ভরসার আশ্রয়স্থলে পরিণত হয়েছেন শেখ হাসিনা -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দেয়ার আহবান প্রার্থীর ৭১ মুক্তির লড়াইয়ে শিশু কিশোর দয়ারাম রায় রাবিসাসের সভাপতি নুরুজ্জামান, সম্পাদক নুর আলম কাহারোলে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠান এবং পুরুস্কার বিতরন দিনাজপুরে সতধা সমবায় সমিতির উদ্দোগ্যে শীতার্থদের মাঝে কম্বল বিতরন গ্রামীণফোন সেন্টার এখন বীরগঞ্জে ঘোড়াঘাটে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ডোমারে ভোরের দর্পণ পত্রিকার ২১তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত বিরল উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল আজাদ মনির মা রাবেয়া খাতুনের মৃত্যুতে.. নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপির শোক প্রকাশ

মধ্যরাতে নবজাতকের চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন তালা থানার কর্মকর্তা সেকেন্দার ও প্রিতিশ রায়

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ৭৬ জন দেখেছেন

এন ইসলাম,তালা,সাতক্ষীরাঃ

জাতপুরে মধ্য রাতে অসহায় মায়ের কান্না শুনে তার নবজাতক শিশুকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন তালা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেকেন্দার আলী ও উপপরিদর্শক (এসআই) প্রিতিশ রায়। এর মধ্যদিয়ে ‘সেবাই পুলিশের ধর্ম’ কথাটি যেন আরও একবার প্রমাণিত হলো।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত শনিবার মধ্য রাতে তালা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেকেন্দার আলী ও এসআই প্রিতিশ রায়সহ পুলিশের একটি টহল পার্টি উপজেলার জাতপুর ঋষিপাড়ার কাছাকাছি পৌঁছালে এক অসহায় মায়ের কান্না শব্দ শুনে এগিয়ে যান তাদের বাড়ির পথ ধরে। সেখানে গিয়ে জানতে পারেন তার নবজাতক শিশুটি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে নিঃশ^াস বন্ধ হয়ে আছে। কোন যানবাহন না পাওয়ায় চিকিৎসকের কাছে নিতে পারছেন না তারা। তাৎক্ষণিক শিশুটিকে টহল গাড়িতে করে তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন তারা। সেখানে তার অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় ঐ রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে করে শিশুটিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থানায় ফিরে আসেন এসআই প্রিতিশ। মধ্য রাতে বিপদগ্রস্ত ঐ শিশুর পরিবারের পাশে দাড়ানোর কারণে শিশুটি এখনো হয়তোবা বেঁচে আছে বলে দাবি পরিবারটির। আবেগে আপ্লুত হয়ে তারা বলেন, এমন দারোগা ওসি জীবনে দেখিনি। ঈশ্বর মনে হয় দেবদূত হিসাবে উনাদেরকেই পাঠিয়েছিলেন।
শিশুটির বাবা সাতক্ষীরার সদরের কচুয়া গ্রামের হতদরিদ্র নরসুন্দর শংকার সরকার। বর্তমানে ১১দিনের ওই অসুস্থ শিশুটি তার মায়ের সাথে তালার জাতপুর ঋষিপড়ায় দাদু চিত্তরঞ্জন সরকারে বাড়িতে অবস্থান করছে। নরসুন্দর হতদরিদ্র বাবার পক্ষে শিশুটির চিকিৎসার ব্যয় বহনের সংগতি নেই। তাই তিনি সবার কাছে সাধ্যমত সহযোগিতা করার আকুল আবেদন জানিয়েছেন। সহযোগিতার জন্য ০১৭৬১৮৩০০৩৬ নাম্বারে যোগাযোগ করা যেতে পারে।
তালা থানার ওসি মেহেদি রাসেল বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। আমার ওসি তদন্ত সেকেন্দার আলী ও এসআই প্রিতিশ রায় অবশ্যই প্রশংসার যোগ্য কাজ করেছে এবং মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছে।

সেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )