1. sbnews2016@gmail.com : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. support@wordpress.org : Support :
  3. uttam.birganj14@gmail.com : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৩:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বীরগঞ্জের শিবরামপুর শাখার আ’লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে তপন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক রেজা আনোয়ার নির্বাচিত পরমত সহিষ্ণুতা, শ্রদ্ধাবোধ ধার্মিকতার প্রথম সোপান -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ১০নং মোহনপুর ইউনিয়ন শাখার নব নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক   এর  সংবর্ধনা অনুষ্ঠান বীরগঞ্জে প্রচন্ড গরমে স্বস্তিতে তালের শাঁস এর চাহিদা বেড়েছে দক্ষিণ পলাশবাড়ী (বালাডাঙ্গী) ঈদগাঁ কমিটির প্রস্তুতিমুলক সভা অনুষ্ঠিত সাম্প্রদায়িকতার ঘৃণ্য আবর্তে শিক্ষক নির্যাতন জাতির জন্য কলঙ্কময় -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি দিনাজপুরে বাংলাদেশ কৃষক সমিতি জেলা বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ঘোড়াঘাটের সিংড়া ইউনিয়ন বাসীকে এ্যাম্বুলেন্স উপহার দিলেন চেয়ারম্যান আজ ঐতিহাসিক সাঁওতাল বিদ্রোহ দিবস বীরগঞ্জে নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে ১০ লাখ টাকা ব্যয়ে পাবলিক টয়লেটের উদ্বোধন ঘোড়াঘাটে এক যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ঘোড়াঘাট পৌরসভার বাজেট পেশ বিরামপুর পৌরসভায় ২০২২-২৩ অর্থ বছরের প্রস্তাবিত বাজেট ঘোষণা ফুলবাড়ীতে প্রধান শিক্ষক এর বিরুদ্ধে সংবাদ প্রচার হওয়ায় প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত

বীরগঞ্জে ভাপা ও চিতাই পিঠা বিক্রি করে সচ্ছলতা বাছিরণ

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ১০১ জন দেখেছেন

বিকাশ ঘোষ, বীরগঞ্জ(দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের বীরগঞ্জে শীতকালীন পিঠা বিক্রি করে সচ্ছলতায় বাছিরণ বেওয়া। ‘পরিশ্রমে ধন আনে সুখ, অলসতায় দারিদ্রতা, পাশে আনে দু:খ।’ এমন মন্ত্র কে সামনে রেখে বীরগঞ্জ উপজেলার বীরগঞ্জ পৌরসভার স্বামী হারা বিধবা বাছিরণ বেওয়া শীতকালীন ভাপা ও চিতাই পিঠা বিক্রি করে দুঃখ জয় করা উজ্জ্বল দৃষ্টি স্থাপন করেছেন। স্বামীর মৃত্যুর পর সংসারে যখন নুন আনতে পানতা ফুরাতো। অসুস্থ বাবাকে পাশে নিয়ে বীরগঞ্জ পৌরশহরের তাজমহল সিনেমাহলে সামনে পাকা রাস্তার পাশে কোনোমতে একটু বসার জায়গায় করে নিয়ে শীতকালীন ভাপা ও চিতাই পিঠা বিক্রি করচ্ছেন বাছিরণ বেওয়া। আগে কাজ না পেয়ে একবেলা খেয়ে এবং আরেকবার খেয়ে চলতো সংসার। এখন শীতকালীন পিঠা বিক্রি করে সচ্ছলতা তিনি। বাছিরণ বেওয়ার মাথায় আসে বসে না থেকে পিঠা তৈরি করে বিক্রি করে সংসারে সে সহায়তা করতে পারে। যেই কথা সেই কাজ। সে এনজি থেকে ঋণ নিয়ে শুরু হয় ভাপা পিঠা তৈরির কাজ। শুরুর দিন পিঠা কম বিক্রি হলেও প্রচার হওয়ার পর ১৫০ থেকে ২০০ টাকার পিঠা বিক্রি করা হয় তার। উপজেলার পাল্টাপুর ইউনিয়নের ভোগডোমা গ্রামে বাছিরণের বাড়ী। প্রতিদিন বিকালে ভাপা ও চিতাই পিঠার গ্রহকের ডাকে তার দোকান শুরু হয়। বৃদ্ধ পিতাকে সাথে নিয়ে বিকেল ৪টা থেকে মধ্যে রাত পর্যন্ত ২০০ থেকে ৩০০ টাকার পিঠা বিক্রি করে ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা আয় হয় তার। তিনি জানান, এখন কাজ না পেলেও তাদের উপাস থাকতে হয় না। হাত গুটি মানুষের মুখ পানে চেয়ে না থেকে একটু পরিশ্রম করলে সুখের দেখা মেলে দুমুঠা ডাল ভাত পাওয়া যায় উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বাছিরণ বেওয়া। অন্যদিকে স্লুইসগেট মোড়ের মৌসুমি পিঠা বিক্রেতা জামেরুল খাতুন ও রহিমা বেগম জানান, এখন শীতকালীন সময়ে পিঠা বিক্রি জমে উঠেছে। নারীরা ঘরে বসে না থেকে ইচ্ছা করলেই কোনো না কোনোভাবে সংসারে আয়ের রাস্তা বের করতে পারে বলে মনে করেন তারা।

সেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )