দিনাজপুরের রাস্তায় লাল রক্তিম মনমুগ্ধ প্রকৃতি দিনাজপুরের রাস্তায় লাল রক্তিম মনমুগ্ধ প্রকৃতি – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বীরগঞ্জে মন্দিরের শৌচাগার নিমার্ণ কাজের উদ্বোধন মুখে মাস্ক না থাকায় রিকসা চালকের মাথা ফাটালো ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতাকর্মী উলিপুরের বিশিষ্ট সমাজ সংস্কারক দার্শনিক এর ৮তম প্রয়াণ দিবস পালিত বিরামপুর মহিলা কলেজ পরিদর্শন ও মাস্ক বিতরণ করলেন ইউএনও বীরগঞ্জে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও শিশু সুরক্ষা বিষয়ে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভা কাহারোলে শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়ন বিষয়ক সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামীলীগের নৌকা প্রত‍্যাশি সুজাউল হক সবুজ মুখে মাস্ক না থাকায় রিকসা চালকের মাথা ফাটালো ফুলবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিচ্ছন্নতাকর্মী বীরগঞ্জ সরকারি কলেজে বৃক্ষ রোপণের মাধ্যমে বীরগঞ্জ শুভসংঘের নতুন কমিটির যাত্রা শুরু রানীশংকৈলে ভাঙা কালভার্টে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল রাণীশংকৈলে কৃষকের মাঝে বিনামূল্যে বীজ ও সার বিতরণ শিশু অধিকার, শিশু নিরাপত্তা, উন্নয়নের জন্য যোগাযোগ (সিফোরডি) ও শিশু নেতৃত্বের কর্মশালা তাকেদা হেলদি ভিলেজ প্রজেক্ট এর প্রকল্প কার্যক্রম সমাপনী ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন অনুষ্ঠান বাল্যবিবাহ রোধে কিশোর কিশোরীদের আন্দোলন গড়ে তোলার বিকল্প নেই এমপি মনোরঞ্জন শীল গোপাল ডোমারের জোড়াবাড়ী ইউপি নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী যুবলীগ নেতা আজাহারুল ইসলাম জুয়েল

দিনাজপুরের রাস্তায় লাল রক্তিম মনমুগ্ধ প্রকৃতি

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ১০ মে, ২০২১
  • ২৩৮ জন দেখেছেন

এল এইচ আকাশ ,নিজস্ব্প্রতিবেদক॥

ছোট বেলায় স্কুলে পড়ার সময় ফুল কুড়িয়ে এনে মালাগাথা সেই দিনটি আজ হারিয়ে গেছে কিন্তু হারায়নি গ্রীষ্মকালের বাহার কৃষ্ণচূড়া ফুল। সবুজ পাতার ফাঁকে লাল রক্তিম কৃষ্ণচূড়া ফুল ফুটেছে দিনাজপুরে রাস্তার দু পাশে কৃষ্ণচূড়া গাছে । দেখলেই যেন চক্ষু জুড়িয়ে যায় । মন যেন দিশেহারা হয়ে গাইতে থাকে গান।
কালবৈশাখির কালো মেঘের মধ্যেও উঁকি দেয় লাল টকটকে কৃষ্ণচূড়া ফুল। কৃষ্ণচূড়া গাছের বৈজ্ঞানিক নাম ডেলোনিক্স রেজিয়া। এটি ফ্যাবেসি পরিবারের অন্তর্গত একটি গাছ, যা ‘গুলমোহর’ নামেও পরিচিত।
দিনাজপুরের শহরে খুব একটা দেখা না গেলেও সদর উপজেলা ও দিনাজপুরের বিভিন্ন উপজেলার অলি-গলিতে বৈশাখের খরো তাপ ভেদ করে আকাশ পানে যেন কালো সাদা মেঘে সেজেছে লাল রক্তিমে কৃষ্ণচূড়া ফুল। ২৯ এপ্রিল ২০২১ বৃহস্পতিবার দিনাজপুর শহরের শিশুপার্ক, উপশহর ২ নং মাঠ, উপশহর ৩ নং মিতালী মাঠ, শহরের কালিতলা ক্ষেত্রিপাড়া, সদর উপজেলা গাবুরাসহ দিনাজপুরের বিভিন্ন স্থানে দেখা মেলে এই কৃষ্ণচূড়া ফুলের। ঋতু রাজ বসন্তের ভালোবাসা নিয়ে কৃষ্ণচূড়া তার সমস্ত রং প্রকৃতির মাঝে ছড়িয়ে উজাড় করে দিয়ে দিনাজপুর কে সাজিয়েছে এক অনত্র মাত্রায়।
দিনাজপুরে কৃষ্ণচূড়া তার মোহনীয় সৌন্দর্য নিয়ে হাজির হয়েছে প্রকৃতির মাঝে। কৃষ্ণচূড়া লাল আর হলুদের ফোটা আবীর গ্রীষ্মকালকে তীব্র গরমের চোখ জুড়ানো এক তৃপ্তি মাত্রা। বৈশাখে কৃষ্ণচূড়া তার লাল আবীর নিয়ে পাকা রাস্তার পাশে দাড়িয়ে আছে আপন সৌন্দর্যের মহিমায়।
কৃষ্ণচূড়া গাছের দিকে তাকালেই তার মুগ্ধতায় যে কেউ দৃষ্টি তৃপ্ত হবেন। তাইতো কৃষ্ণচূড়া দেখেই কবি তার ভাষায় বলেছিলেন “কৃষ্ণচূড়া আগুন তুমি আগুন ঝরা বানে, খুন করেছে শূন্য তোমার গুন করেছ গানে”।
জানা গেছে, কৃষ্ণচূড়া ফুল লাল ও হলুদ রঙের দুটি জাতের হয়ে থাকে। আমরা না জেনে দুটিকেই কৃষ্ণচূড়া ফুল বলে থাকি। লাল রঙের ফুলকে কৃষ্ণচূড়া ও হলুদ রঙ্গের ফুলকে রাধাচূড়া বলা হয়। তবে হলুদ রঙের রাধাচূড়া এখন তেমন দেখা যায় না বললেই চলে। আমাদের দেশে এপ্রিল মাসে এই ফুল ফোটে।
কবির ভাষা হয়তো অনেকেই বুঝে না । কিন্তু মনকে রাঙ্গাতে এ ফুল ধরা ছোয়ার নাগালে থাকলে কিশোর বা টিনেজার ছেলে মেয়েরা হাতে নিতে ভুল করে না। যার প্রমাণ হিসাবে বলতে গেলে আমারি এক ছোট বেলার গল্প মনে পড়ে যায়। আমি প্রাইমারিতে আমার ছোট আন্টি মোছাঃ আলেমা খাতুনের সঙ্গে পড়তাম স্কুল ছুটি হওয়া মাত্রই দৌড়ে যেতাম কৃষ্ণচূড়া গাছে বাজি ধরতাম মালাটা আমার বেশি বড় হবে। যার যত ফুল তার বেশি বড় মালা, আজও সেরক একটি দৃশ্য চোখে পড়ল। উপশহর ২ নং মাঠে কিছু ছোট ছোট ছেলে মেয়ে কৃষ্ণচূড়া ফুল কুড়াচ্ছে তাদেরকে দেখে মনে পড়ে গেল সেদিনের সেই কথাগুলো।
এপ্রিল-মে মাসে যখনি গাছে নতুন পাতা গজায় গাছে গাছে ফুল ফোটে তখনি যেন প্রকৃতি প্রেমিদের নজর কাড়ে মনোমুগ্ধকর এই কৃষ্ণচূড়া। পথের মধ্যে লাল ও হলুদ কৃষ্ণচূড়া দেখলেই মনে হয় একটু থেমে যাই। দিনাজপুর শহরে বেশি না থাকলেও প্রতিটি গ্রামে এখন কৃষ্ণচূড়ার শাখায় শাখায় লাল হলুদ ফুলের সমারহ।
কৃষ্ণচূড়া গাছ মোটা হলেও খুব একটা লম্বা হয় না। তবে এর ডালপালা পাইকোর গাছের মতো অনেক জায়গা পর্যন্ত বিতৃত থাকে। পরিবেশের সৌন্দর্যবর্ধক বৃক্ষ কৃষ্ণচূড়া গাছ বর্তমানে রাস্তার ধারে এবং বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সরকারি অফিস ও উপজেলা পরিষদের আঙিনায় শোভা পাচ্ছে।
কৃষ্ণচূড়া ফুলের পাপড়ি লাল হলুদ রঙের হয় এর ভিতর অংশে হালকা হলুদ আবীর যুক্ত। অনেক দূর থেকে দেখলে মনে হয় গাছে গাছে যেন আগুন জ্বলছে আর পুরোনো দিনের স্মৃতি মনকে রাঙ্গিয়ে দিচ্ছে । সবকিছু মিলিয়ে কৃষ্ণচূড়া যেন সৃষ্টিকর্তার দান অপরুপ সৌন্দর্যের মহিমা।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Sabuj Bangla News Team