ডিজিটাল যুগের ধাক্কায় বীরগঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্সের ব্যবহার ডিজিটাল যুগের ধাক্কায় বীরগঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্সের ব্যবহার – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বীরগঞ্জে ৪ হাত পা বিশিষ্ট শিশু দিনাজপুরে বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রহিম স্মৃতি ফুটবল টুর্ণামেন্ট এর চুড়ান্ত খেলা ও পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠিত সিসি ক্যামেরার আওতায় নতুন রূপে সজ্জিত হলো বীরগঞ্জ পৌরসভা ঘোড়াঘাটে জেলা প্রশাসকের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে সিংড়া শালবনে দর্শনার্থীদের আনাগোনায় মুখরিত গতিহীন বিএনপি’র জন্য হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করতে হবে -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জে কমিউনিটি ও বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে চার শতাধিক চরে বসেছে কাশফুলের মেলা রাণীশংকৈলে মাল্টা চাষে স্বাবলম্বী হচ্ছেন কৃষকরা কুড়িগ্রাম সীমান্তে ‘বাংলাদেশী ভেবে’ ভারতীয়কে গুলি করে হত্যা বীরগঞ্জে ভোক্তা অধিদপ্তরের বাজার তদারকিতে ৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় সাম্প্রদায়িকতার সমাধিতে অসাম্প্রদায়িক চেতনার কেতন উড়বেই -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি রাণীশংকৈলে আ.লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত প্রবাসীদের সহায়তায় ভাসমান সাঁকো নির্মাণ বীরগঞ্জে দুর্গা প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

ডিজিটাল যুগের ধাক্কায় বীরগঞ্জে হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্সের ব্যবহার

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০
  • ৬২ জন দেখেছেন

‘রানার চলেছে খবরের বোঝো হতে,রানার চলেছে,রানার! রাত্রির পথে পথে চলে কোনো নিষেধ জানে না মানার, দিগন্ত থেকে দিগন্তে ছোটে রানার -কাজ নিয়েছে সে নতুন খবর আনার, আজও ভারতীয় শিল্পী মান্না দের কণ্ঠে গানটি শুনা যায়। একটা সময় দিনাজপুরের বীরগঞ্জে ডাকপিয়নের কদর ছিল যথেষ্ট। সেই রানার সেই চিঠি, সেই ডাক বিভাগ সব্যই এখন ডিজিটাল যুগের ধাক্কায় অতীতের পথে। বীরগঞ্জে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে ডাকবাক্সের ব্যবহার। বর্তমান ডিজিটাল যুগের আমরা একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছি খুব সহজেই। ফলে আগের মতো আর এখানকার মানুষের আগ্রহ নেই। আজকাল আর আগের মতো চিঠি আদান-প্রদান করতে দেখা যায় না। পোষ্ট অফিসের সামনে রাস্তার পাশে রাখা ডাকবাক্সগুলো অরক্ষিত অবস্থায় অভিভাবকহীনভাবে পরে রয়েছে। আবার কোনো কোনো স্থানে ডাকবাক্সেই অস্তিত্ব নেই। বীরগঞ্জ ডাক অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার শিবরামপুর,পলাশবাড়ী, শতগ্রাম,পাল্টাপুর,সুজালপুর, নিজপাড়া,মোহাম্মদপুর, ভোগনগর,সাতোর, মোহনপুর ও মরিচাসহ ১১টি ইউনিয়নে মোট ১২টি ব্যাঞ্চ পোষ্ট অফিস রয়েছে। এবং বিভিন্ন হাট-বাজারের ডাকবাক্সই যেগুলোতে রয়েছে। বর্তমানে সরকারি চিঠি ছাড়া ব্যক্তিগত চিঠির তেমন দেখা মিলছেনা। ডাকব্যবস্থা যখন হারিয়ে যেতে বসেছে সেই সময়ে পালিত হয়ে গেল বিশ্ব ডাক দিবস। ১৯৮৪ সালে জার্মানির হামবুর্গ অনুষ্ঠিত ইউনিভার্সাল ডাক ইউনিয়নের ১৯তম অধিবেশনে বিশ্ব ডাক ইউনিয়ন দিবসের নাম পরিবর্তন করে’ বিশ্ব ডাক দিবস ‘রাখা হয়। এরপর থেকে বাংলাদেশও পালিত হচ্ছে ডাক দিবস। স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে,এমন একসময় ছিল যখন যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম ছিল চিঠি। এখন সেটি রূপকথার গল্প হয়ে রয়েছে। যোগাযোগের মাধ্যম ছিল ‘টরেটক্কা ‘টেলিগ্রাম আর চিঠি। তারও আগে পায়রার পায়ে চিঠি বেঁধে খবর পাঠানো হতো। চিঠি লেখার জন্য ছিল পোষ্টকার্ড ও বিভিন্ন রং-বেরঙের প্যাড। কেউ এখন আর চিঠি লিখে না। চিঠি লেখার অভ্যাসই মানুষ ভুলতে বসেছে। তথ্য ও প্রযুক্তির উৎকর্ষে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে এ জনপদেরও ফেসবুক জনপ্রিয়তার শীর্ষে। এ ছাড়াও ইমো, হোয়াষ্ট অ্যাপ ইত্যাদিরও জনপ্রিয় বর্তমানে মুহূর্তে ভিডিওকলে অবাধ ব্যবহার। কিন্তু আজ থেকে একযুগ আগেও এখানকার যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম ছিল চিঠি বা পত্রালাপ। ডাকপিয়ন চিঠি নিয়ে এলে অন্যরকম এক অনুভূতি জাগ্রত হতো মনে। তখন চিঠির সঙ্গে আবেগের সম্পর্ক ছিল।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Sabuj Bangla News Team