২০ বছরেও লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া, নিশ্চিহ্ন রাস্তার অস্তিত্ব ২০ বছরেও লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া, নিশ্চিহ্ন রাস্তার অস্তিত্ব – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ০৬:৩২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
হিমাগারে আলু সংরক্ষণ ভাড়া বাড়ানোর প্রতিবাদে কুড়িগ্রামে মানববন্ধন বীরগঞ্জে পূজা উদযাপন কমিটি উদ্যোগে এমপি গোপালের রোগ মুক্তি কামনায় প্রার্থনা সভা অনুষ্ঠিত নিজপাড়া -১ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টিউবওয়েল চুরি,ভয়াবহ অগ্নিকান্ড দিনাজপুরের বীরগঞ্জের রসুলপুর গোধূলী বৃদ্ধাশ্রমের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া প্রার্থনা ডিমলায় অটোচালকে গলা কেটে হত্যার চেষ্টা বীরগঞ্জে নদীতে ডুবে ইব্রাহিম মেমোরিয়াল শিক্ষা নিকেতনের ছাত্রীর মৃত্যু বিরামপুরের জামাই হলেন রেল মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন ভিসি কলিমউল্লাহ অভিনীত সিনেমার ভিডিও ভাইরাল! বাবার পর ইয়াবাসহ মা-ছেলে আটক

২০ বছরেও লাগেনি উন্নয়নের ছোঁয়া, নিশ্চিহ্ন রাস্তার অস্তিত্ব

চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৬ মার্চ, ২০২১
  • ২১৬ জন দেখেছেন
নিশ্চিহ্ন সড়কের প্রায় সাড়ে চারশো মিটারের মতো রাস্তা। (ছবি : প্রতিনিধি)

ন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের জামিজুরী চৌকিদারের দোকান-দুর্গাবাড়ি মন্দির ও বৈল্লাপুকুর সড়কে গত ২০ বছরেও উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে সড়কের প্রায় সাড়ে চারশো মিটারের মতো রাস্তার অস্তিত্ব।

দীর্ঘ ২০ বছরেও সড়কটির সংস্কার না হওয়ায় যানবাহন চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। পুরো রাস্তা জুড়ে সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের। এই সড়ক দিয়ে চলাচলরত জনসাধারণকে বর্ষা মৌসুমে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। কর্দমাক্ত সড়কে ছোট ছোট যানবাহন একবার গর্তে পড়ে গেলে ৭/৮ জন মিলে টেনে তুলতে হয়। প্রায় তিন শতাধিক পরিবারের চলাচলের জন্য একমাত্র রাস্তাটি দীর্ঘদিন যাবত সংস্কারবিহীন অবস্থায় পড়ে থাকলেও কর্তাব্যক্তিদের নজরে আসছেনা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, চৌকিদারের দোকান থেকে তরুণ সংঘ দুর্গাবাড়ি মন্দির পর্যন্ত সড়কে ব্রিক সলিং থাকলেও কোন কোন অংশে ইট না থাকায় স্থানীয়রা মাটি দিয়ে গর্ত ভরাট করে চলাচল উপযোগী করেছে। এছাড়া দুর্গাবাড়ি মন্দিরের সামনে থেকে বৈল্লাপুকুর পর্যন্ত অংশে মূল মাটির সাথে মিশে গেছে সড়ক। প্রায় পুরো রাস্তা জুড়ে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তাটি কর্দমাক্ত হয়ে যানচলাচল দূরে থাক পায়ে হেঁটে চলাই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়ে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ- বিগত ২০ বছর আগে সড়কটি সংস্কার করা হলেও এরপর আর কোনো কাজ হয়নি। পৌরসভায় অন্যান্য এলাকায় উন্নয়ন কাজ হলেও এখানে উন্নয়নের তেমন ছোঁয়া লাগেনি।

এলাকাবাসীর দাবি, প্রায় পাঁচ শতাধিক পরিবারের কয়েক হাজার মানুষ সড়কটি ব্যবহার করলেও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এই সড়কটি সংস্কারে উদ্যোগ নেননি। একাধিকবার আশ্বাস দিলেও কাজ হয়নি। দিনদিন সড়কটি মাটির সাথে মিশে যাওয়ার উপক্রম হলেও দেখার যেন কেউ নেই।

ইউনিয়ন থাকা অবস্থায় সংস্কারবিহীন পড়ে থাকা এই সড়কটি পৌরসভায় উন্নীত হওয়ার তিন বছর পরেও সংস্কার না হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে স্থানীয় ব্যবসায়ী রাসেল বলেন, বেশ কয়েকবার মাপঝোঁক করে নিলেও সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এলাকার লোকজনদের কথা বিবেচনা করে পৌর কর্তৃপক্ষ সড়কটি দ্রুত মেরামতের উদ্যোগ নেবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

এ ব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে দোহাজারী পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী শ্যামল চন্দ্র বলেন, ‘পৌর প্রশাসকসহ সড়কটি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছি। দ্রুততম সময়ে সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হবে।’

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy