বীরগঞ্জে বৃষাল ধারে বৃষ্টি, জনদুর্ভোগ চরমে বীরগঞ্জে বৃষাল ধারে বৃষ্টি, জনদুর্ভোগ চরমে – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৫:৫২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আদাজল খেয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি বীরগঞ্জ উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের আয়োজনে দিনাজপুর- ১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এমপি’র সুস্থ্যতা দোয়া কামনায় বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। কুড়িগ্রামে শিশুশ্রম সবচেয়ে বেশি কাহারোল উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত দিনাজপুর বীরগঞ্জে ৯ নং সাতোর ইউনিয়নের দলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপির রোগমুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে আর্দশ কৃষকদের মাঝে প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক নারীর কাহারোলে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ‘জাম্ক ফুড, পথ ও খোলা খাবার না খেলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি মিলে’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

বীরগঞ্জে বৃষাল ধারে বৃষ্টি, জনদুর্ভোগ চরমে

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
  • ২৮ জন দেখেছেন

 

বিকাশ ঘোষ,বীরগঞ্জ (দিনাজপুর) প্রতিনিধি :

মাঘ মাস পেরিয়ে চলতি ফাল্গুন মাসে শুরু হয়েছে মেঘলা আকাশ আর বৃষ্টি। দিনাজপুরের বীরগঞ্জে সকাল থেকেই গুড়িগুড়ি বৃষ্টি একপর্যায় ভারি বর্ষন ঝড়ছে। বৃষ্টির কারণে জনজীবন অচল হয়ে পড়েছে। জনসাধারণের। এদিকে খেটে খাওয়া নিম্ম আয়ের মানুষ ও গবাদিপশুর দুর্ভোগে পড়ছে। দুই ধরে বীরগঞ্জের আকাশ মেঘলা থাকার পর মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে শুরু হয় গুড়িগুড়ি বৃষ্টি। এতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকলেও শিক্ষার্থীর উপস্থিতি ছিল কম। পৌরশহরের শ্রমজীবী, ভ্যান, রিক্সা ও শ্রমিকরা বেকায়দায় পড়েছেন। বিরতিহীন বৃষ্টির কারণে অসংখ্য গবাদিপশুর খাদ্য সংকট দেখা দিতে পারে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। হরে রিক্সা চালক মানিক চন্দ্র রায় বলেন,সকালে মেঘ দেখে রিক্সা নিয়ে বাহির হয়েছি।ঘণ্টাখানিক পর বৃষাল ধারে বৃষ্টি শুরু হয়।কোন রেইনকোট বা ছাতা আনা হয়নি। বৃষ্টিততে ভিজেই যাত্রী তুলছি। প্রচন্ড বাতাসে শরীর অকেজো হয়ে আসছে। কিছু করার নেই কারণ পরিবার পরিজনদের সকল চাহিদা পূরণ করতে হবে। পৌরশহরে ফুটপাথে খোলা আকাশের নিচে দোকান দেওয়া একজন ফল ব্যবসায়ী মোঃ গোলাম মোস্তফা বলেন, মাথা উপর কোন ছাদ নেই। বৃষ্টির পানিতে ভিজে দোকানে বেচাকেনা করেছি। কোন উপায় নেই, ছেলে-মেয়েদের মুখের আহার জোগার করতে হবে। আমরা গরীব মানুষ, ঝড় বৃষ্টি ও শীত আমাদের কিছুই করার থাকেনা।

  • 51
    Shares
এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy