1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৭:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
বীরগঞ্জে অতিদরিদ্রদের কর্মসংস্থান কর্মসূচির উদ্বোধন কৃষিতে বাংলাদেশ স্বাবলম্বী -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি দিনাজপুর মেডিকেলে চান্স প্রাপ্ত সাবিহা’র পরিবারের সাথে কুশল বিনিময় করেন জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ কিশোরগঞ্জে চাঁড়াল কাটা নদী এখন ধু-ধু বালুচর কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল অফিস উদ্বোধন কুড়িগ্রামে আইনজীবীর সাথে দুই মাদক ব্যবসায়ী হিরোইন সহ আটক দিনাজপুরে জাগ্রত দিনাজপুর নামে স্বেচ্ছাসেবক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম মানুষ যদি সচেতন না হয় চিকিৎসক দিয়ে করোনা নির্মুল করা সম্ভব নয় ————————-হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ইতিহাস ঐতিহ্য রক্ষায় পুরোনো মন্দিরগুলোকে সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি করোনা ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছে জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম

মধ্যরাতে নবজাতকের চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন তালা থানার কর্মকর্তা সেকেন্দার ও প্রিতিশ রায়

প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময়: সোমবার, ৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
  • ১৪ জন দেখেছেন

এন ইসলাম,তালা,সাতক্ষীরাঃ

জাতপুরে মধ্য রাতে অসহায় মায়ের কান্না শুনে তার নবজাতক শিশুকে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেন তালা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেকেন্দার আলী ও উপপরিদর্শক (এসআই) প্রিতিশ রায়। এর মধ্যদিয়ে ‘সেবাই পুলিশের ধর্ম’ কথাটি যেন আরও একবার প্রমাণিত হলো।
ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত শনিবার মধ্য রাতে তালা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সেকেন্দার আলী ও এসআই প্রিতিশ রায়সহ পুলিশের একটি টহল পার্টি উপজেলার জাতপুর ঋষিপাড়ার কাছাকাছি পৌঁছালে এক অসহায় মায়ের কান্না শব্দ শুনে এগিয়ে যান তাদের বাড়ির পথ ধরে। সেখানে গিয়ে জানতে পারেন তার নবজাতক শিশুটি নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে নিঃশ^াস বন্ধ হয়ে আছে। কোন যানবাহন না পাওয়ায় চিকিৎসকের কাছে নিতে পারছেন না তারা। তাৎক্ষণিক শিশুটিকে টহল গাড়িতে করে তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন তারা। সেখানে তার অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় ঐ রাতেই অ্যাম্বুলেন্সে করে শিশুটিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তার সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থানায় ফিরে আসেন এসআই প্রিতিশ। মধ্য রাতে বিপদগ্রস্ত ঐ শিশুর পরিবারের পাশে দাড়ানোর কারণে শিশুটি এখনো হয়তোবা বেঁচে আছে বলে দাবি পরিবারটির। আবেগে আপ্লুত হয়ে তারা বলেন, এমন দারোগা ওসি জীবনে দেখিনি। ঈশ্বর মনে হয় দেবদূত হিসাবে উনাদেরকেই পাঠিয়েছিলেন।
শিশুটির বাবা সাতক্ষীরার সদরের কচুয়া গ্রামের হতদরিদ্র নরসুন্দর শংকার সরকার। বর্তমানে ১১দিনের ওই অসুস্থ শিশুটি তার মায়ের সাথে তালার জাতপুর ঋষিপড়ায় দাদু চিত্তরঞ্জন সরকারে বাড়িতে অবস্থান করছে। নরসুন্দর হতদরিদ্র বাবার পক্ষে শিশুটির চিকিৎসার ব্যয় বহনের সংগতি নেই। তাই তিনি সবার কাছে সাধ্যমত সহযোগিতা করার আকুল আবেদন জানিয়েছেন। সহযোগিতার জন্য ০১৭৬১৮৩০০৩৬ নাম্বারে যোগাযোগ করা যেতে পারে।
তালা থানার ওসি মেহেদি রাসেল বলেন, আমি ঘটনাটি শুনেছি। আমার ওসি তদন্ত সেকেন্দার আলী ও এসআই প্রিতিশ রায় অবশ্যই প্রশংসার যোগ্য কাজ করেছে এবং মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছে।

  • 36
    Shares
এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy