কাহারোলে কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই শাক-সবজি উৎপাদনে বিপ্লব ঘটিয়েছে আখিরাপাড়ার চাষিরা কাহারোলে কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই শাক-সবজি উৎপাদনে বিপ্লব ঘটিয়েছে আখিরাপাড়ার চাষিরা – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ১১:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কুড়িগ্রামে শিশুশ্রম সবচেয়ে বেশি কাহারোল উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত দিনাজপুর বীরগঞ্জে ৯ নং সাতোর ইউনিয়নের দলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপির রোগমুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে আর্দশ কৃষকদের মাঝে প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক নারীর কাহারোলে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ‘জাম্ক ফুড, পথ ও খোলা খাবার না খেলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি মিলে’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ৩টি ওয়ার্ডে চলাচলে বিধি নিষেধ আরোপ বীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে এমপি গোপাল এর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

কাহারোলে কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই শাক-সবজি উৎপাদনে বিপ্লব ঘটিয়েছে আখিরাপাড়ার চাষিরা

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২০
  • ৫২ জন দেখেছেন

 

কাহারোল (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:

কাহারোলে ক্লাস্টার প্রদর্শনীর মাধ্যমে ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহারে নিরাপদ শাক-সবজি চাষে কৃষকরা দিন,দিন লাভবান হচ্ছেন। এর ফলে যতদিন যাচ্ছে ততই এই প্রযুক্তির ব্যবহারও বৃদ্ধি পাচ্ছে উপজেলার কৃষকের কাছে। দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের আখিরাপাড়া গ্রামে সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, অত্র গ্রামের কৃষকরা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সার্বিক তত্বাবধানে ও ন্যশনাল এগ্রিকালচার টেকনোলোজি প্রোগ্রাম ফেস-২ প্রজেক্ট ( এনএটিপি-২) এর সার্বিক সহযোগীতায় উত্তর রামপুর আখিরাপাড়া গ্রামের কৃষকরা চলতি শাক-সবজি মৌসুমে তাদের ৩০ বিঘা জমিতে বেগুন, শিম, কপি, লাউ শাক সহ অন্যান্য জাতের শাক-সবজি চাষাবাদ করে কৃষকরা তাদের নিজের পায়ে দাড়িয়েছেন। ঐ গ্রামের শাক-সবজি চাষি খাজা মাইনুদ্দিন, আনারুল ইসলাম, আব্দুল খালেক, মোঃ ইসমাইল হোসেন সহ আরও অনেক কৃষক জানান, কৃষি বিভাগের পরামর্শ ও সহযোগীতায় পদ্ধতি অনুযায়ী কোন প্রকার কীটনাশক ব্যবহার ছাড়াই বছর জুড়ে আমরা এই গ্রামে শাক-সবজি সহ নানা প্রকার সবজির চাষাবাদ করি এবং এখানে উৎপাদিত শাক-সবজির চাহিদাও রয়েছে অত্র এলাকা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে। এর ফলে বাজারে অন্য শাক-সবজির চেয়ে আমাদের জমিতে উৎপাদিত সবজির মূল্য সকল মানুষের কাছে অনেক গুনে চাহিদাও রয়েছে বেশি। তাই কীটনাশক প্রয়োগ বা ব্যবহার ছাড়া ফসলের মূল্য বেশি পাওয়ায় সবজি চাষিরা দিন,দিন লাভবান হচ্ছি। রামপুর আখিরা পাড়া গ্রামে পূর্বে কোনদিন এই ধরনের কীটনাশক প্রয়োগ ছাড়াই সবজি চাষাবাদ হত না। এই ধরনের সবজির চাহিদা ব্যাপক থাকায় ফসলের খেত থেকেই ব্যবসায়ীরা নিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত। আমাদের উৎপাদিত সবজি বিক্রি করার জন্য ১৬ মাইল (দিনাজপুর-ঠাকুরগাঁ) মহাসড়কের পূর্বপার্শ্বে রয়েছে একটি সবজির বাজার। এখান থেকে প্রতিদিনেই শাক-সবজি নিয়ে যাচ্ছে এলাকা ও আশ-পাশের জেলার ক্রেতারা। এদিকে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ আবু জাফর মোঃ সাদেক এই প্রতিনিধিকে জানান, উপজেলার মুকুন্দপুর ইউনিয়নের উত্তর রামপুর আখিরাপাড়া গ্রামের কৃষকরা শাক-সবজি উৎপাদনের ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে তারা নিজেদের জমিতে আলু, বেগুন, কপি, লাউ, শিম সহ অন্যান্য জাতের সবজি উৎপাদন করছেন। এই এলাকার মাটি ও আবহাওয়া শাক-সবজি উৎপাদনের ক্ষেত্রে অনুকূলে থাকায় চাষিরা প্রতি মৌসুমেই সবজি উৎপাদন করতে সক্ষম এবং আমাদের কৃষি বিভাগ ও সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী মোঃ নুরুজ্জামান শেখ-এর সার্বিক পরামর্শ-সহযোগীতায় চাষিরা তাদের কাঙ্খিত সবজি উৎপাদন কওে নায্য মূল্যে বাজারে বিক্রি করে দিন,দিন স্বাবলম্বী হয়ে উঠছে।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy