সবজি-মাছ-পেঁয়াজের দাম নিম্নমুখী, বাড়তি ভোজ্যতেল সবজি-মাছ-পেঁয়াজের দাম নিম্নমুখী, বাড়তি ভোজ্যতেল – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১২:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সাপাহারে মানা হচ্ছেনা লকডাউন বীরগঞ্জে রাবিস বালু দিয়ে চলছে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিমার্ণ কাজ।এলাকাবাসীদের মানববন্ধন ঠাকুরগাঁওয়ে হারিয়ে যাচ্ছে কঁচু শাখ, নেই কোন কঁচু শাখের কদর চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা যুবদলের তারিফ বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনা করেছেন ফুলবাড়ীয়ার লেবু যাচ্ছে বিদেশে, বাড়ছে লেবু চাষের আগ্রহ নীলফামারীর ডিমলায় তিস্তার চরে ভুট্টার বাম্পার ফলন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষকে আশান্বিত করেছেন’ -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জ পৌরসভায় পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে টিসিবি’র কার্যক্রম উদ্বোধন সাপাহারে ভ্রাম্যমান আদালতে দু’টি ইটভাটার অর্থদন্ড সাপাহারে কোভিড আক্রান্ত রোগীদের খোঁজ নিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন

সবজি-মাছ-পেঁয়াজের দাম নিম্নমুখী, বাড়তি ভোজ্যতেল

প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময়: শুক্রবার, ১০ জানুয়ারি, ২০২০
  • ৬৫ জন দেখেছেন

সপ্তাহের ব্যবধানে সবজির বাজার কিছুটা নিম্নমুখী রয়েছে। সবজিভেদে প্রতিকেজিতে ৫ থেকে ১০ টাকা করে কমেছে। এর সঙ্গে সবধরনের শাকের দামও কমেছে।

শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) রাজধানীর কারওয়ান বাজার, কমলাপুর, মতিঝিল টিঅ্যান্ডটি বাজার, ফকিরাপুল কাঁচাবাজার, খিলগাঁও, মালিবাগ রেলগেট, মালিবাগ ও রামপুরা ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

এসব বাজারে প্রতিকেজি পেঁপে ২০ থেকে ৩০ টাকা, কাঁচা টমেটো কেজিপ্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা, পাকা টমেটো ৪০ থেকে ৬০ টাকা, নতুন আলু ৩০ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা, গাজর ৪০ থেকে ৫০ টাকা, শসা ৪০ থেকে ৬০ টাকা, সাদা শিম ৩০ থকে ৪০ টাকা, কালো শিম ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বেগুন ৩৫ থেকে ৮০ টাকা, পটল ৪০ থেকে ৫০ টাকা ও ঝিঙা-ধুন্দল ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা যায়।

এছাড়া আকারভেদে প্রতি পিস ফুলকপি ২৫ থেকে ৩৫ টাকা, বাঁধাকপি ৩০ থেকে ৪০ টাকা ও লাউ ৪০ থেকে ৬০ টাকার বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে শাকের বাজারে কচু শাক ৫ থেকে ৭ টাকা, লাল শাক ৮ টাকা, মুলা শাক ১০ টাকা, পালং শাক ১০ থেকে ১৫ টাকা ও লাউ শাক ২৫ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা যায়।

মাছের বাজারেও দাম কমেছে কিছুটা। প্রতিকেজি পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৮০ টাকা, তেলাপিয়া ১৩০ থেকে ১৮০ টাকা, কৈ ১৮০ থেকে ২০০ টাকা, কাতল ২৫০ থেকে ২৮০ টাকা, মৃগেল ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা, রুই (আকারভেদে) ২৮০ থেকে ৩৫০ টাকা, কাচকি ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা, শিং ৩০০ থেকে ৬৫০ টাকা, মলা ৩২০ থেকে ৩৫০ টাকা, দেশি চিংড়ি ৩৫০ থেকে ৫০০ টাকা, পাবদা ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, তাজা ছোট পুঁটি ৪০০ থেকে ৫০০ টাকা, গলদা চিংড়ি ৫০০ থেকে ৬০০ টাকা, বাগদা চিংড়ি ৫৫০ থেকে ৯০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এর সঙ্গে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের ঝাঁজও কমেছে। ২ দিন আগেও দেশি পেঁয়াজ ১৭০ টাকা করে ছিল। এখন ২০ টাকা কমে তা ১৫০ টাকা কেজিদরে এবং কাঁচা মরিচ ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

রামপুরা বাজারে মো. ইব্রাহিম খলিল নামে এক ক্রেতা জানান, সবজির দাম আরও কম হওয়া উচিত। সরকারিভাবে নিয়মিত পেঁয়াজের মতো সবজি বাজার মনিটরিং করলে এমন অস্থিরতা থাকবে না। সাধ্যের মধ্যে দাম থাকবে।

এসব বাজারে ব্রয়লার ১২০ থেকে ১২৫ টাকা, লেয়ার ১৮০ থেকে ২০০ টাকা, সাদা লেয়ার ১৭০ থেকে ১৯০ টাকা, সোনালি ২৬০ থেকে ২৮০ কেজিদরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া গরুর মাংস ৫৫০ টাকা, খাসি ৭৮০ টাকা ও বকরি ৭২০ টাকা প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে।

ভোজ্যতেলও বিক্রি হচ্ছে বাড়তি দামে। সবচেয়ে বেশি দাম বেড়েছে খোলা সয়াবিন তেলের। বোতলজাত সয়াবিন তেল লিটারে ৫ টাকা, খোলা লাল সয়াবিন ১৫ টাকা বেড়ে ৯৫ টাকা ও খোলা সাদা সয়াবিন ১০ টাকা বেড়ে ৯০ টাকা প্রতিলিটার বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া প্রতি ডজন লাল ডিমে ৫ টাকা বেড়ে ১০৫ টাকা, হাঁসের ডিম ১০ টাকা বেড়ে ১৬০ টাকা ও সাদা মুরগির ডিম ১৫৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

নিত্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য পণ্যের মধ্যে চাল, ডাল, আদা, রসুন, সরিষার তেল, এলাচ, দারুচিনি, মশলার দাম অপরিবর্তিত আছে।

  • 15
    Shares
এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy