ধামরাইয়ে ভূয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামে সরকারি পাঠ্যপুস্তক বরাদ্দ ধামরাইয়ে ভূয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামে সরকারি পাঠ্যপুস্তক বরাদ্দ – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৭:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আদাজল খেয়ে মাঠে নেমেছে বিএনপি বীরগঞ্জ উপজেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের আয়োজনে দিনাজপুর- ১ আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য এমপি’র সুস্থ্যতা দোয়া কামনায় বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত। কুড়িগ্রামে শিশুশ্রম সবচেয়ে বেশি কাহারোল উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত দিনাজপুর বীরগঞ্জে ৯ নং সাতোর ইউনিয়নের দলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপির রোগমুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে আর্দশ কৃষকদের মাঝে প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক নারীর কাহারোলে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ‘জাম্ক ফুড, পথ ও খোলা খাবার না খেলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি মিলে’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত

ধামরাইয়ে ভূয়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নামে সরকারি পাঠ্যপুস্তক বরাদ্দ

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ৪ জানুয়ারি, ২০২০
  • ২৭ জন দেখেছেন

মিজানুর রহমান (ধামরাই) ঢাকা (প্রতিনিধি)

ঢাকার ধামরাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস অস্তিত্ব বিহীন একটি ভূয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নামে বিনামূল্যের সরকারি পাঠ্যপুস্তক বরাদ্দ ও সরবরাহ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস কর্তৃক ইস্যুকৃত চালানে বিনামূল্যে সরকারি পাঠ্য পুস্তক বরাদ্দ ও সরবরাহ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানটির নাম লেখা রয়েছে স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ। প্রকৃত পক্ষে স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ নামে কোন মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অস্তিত্ব ধামরাই উপজেলা বা এর পার্শ্ববর্তী কোন উপজেলাতেও নেই বলে জানা গেছে।ধামরাই পৌর-শহরের ঢুলিভিটা বাস্ট্যান্ডের দক্ষিণ পাশে স্কুলে গিয়ে দেখা যায়, সাইবোর্ডে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে এর নাম পরিবর্তে করে স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ লেখা রয়েছে। এই ব্যাপারে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক মোঃ সুজন বাদী হয়ে ধামরাই থানায় একটি জিডি করেন, সেই জিডি নং-৬৯৪।

সুত্রে জানাযায়, আলামিন, নাহিদ ও রাশেদ নামে তিন ব্যাক্তি মিলে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের নামে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে বই আনতে গেলে সেখানে আনোয়ার পাবলিক স্কুর এন্ড কলেজর পরিচালক মোঃ সুজন মিয়া সেটা বাধা দিয়ে বলে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ আমার, তখন মাধ্যমিক অফিসার আমাকে তার প্রমান দেখাতে বলে। তখন আমি আমার স্কুলের সকল কাগজ পত্র নিয়ে মাধ্যমিক অফিসারকে দেখালে তারা আমাকে বই দিয়ে দেয়। এর মধ্যে আলামিন,নাহিদ ও রাশেদ উপায়ন্তর না দেখে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের সাথে যুগসাজসে স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের নামে বই তুলে নেন। কিন্তু দেখা যায় স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেঝের নামে কোন স্কুলই ধামরাই উপজেলায় নেই।

এই ব্যাপারে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক মোঃ সুজন বলে, আমার সাথে নাহিদ,আলামিন ও রাশেদ মিথ্যা কথা বলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা আফিস থেকে বই তুলে নিতে চেয়েছিল কিন্তু আমি বাধা দিলে সেটা আর পারিনি। তাই ভুয়া একটি স্কুলের নাম ব্যাবহার করে বই তুলে নিয়েছিল। এই কারণে আমি ধামরাই থানায় জিডি করেছিলাম। তবে এখন আর সমস্য নেই তারা স্কুলের সকল কাগজ পত্র ঠিক করেছে।

এই ব্যাপারে নাহিদ,আলামিন বলেন, আমরা প্রথমে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে শিক্ষকতা করতাম কিন্তু পরে আমারা সবায় মিলে আরেকটি স্কুল করার জন্য প্রস্তাব দিলাম সেখানে আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ-২ নাম হবে। কিন্তু আমরা যখন বই আনতে যায় তখন আনোয়ার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক সুজন আমাদের বাধা দেয়। পরে আমরা স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ নামে বই আনি।
এ বিষয়ে ধামরাই উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোসাঃ নায়ার সুলতানার বলেন, আমি সকল ঘটনা শুনার পরে ঐ স্কলার পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ বন্ধ করে দিতে চেয়ে ছিলাম, তবে বাংলাদেশ সরকার প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছে যেখানে অনেক ছাত্র-ছাত্রী আছে সেই স্কুলে বই দিতে।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy