প্রেস রিলিজ জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক স্বাক্ষরিতঃ দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক কি? জনমনে প্রশ্ন প্রেস রিলিজ জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক স্বাক্ষরিতঃ দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক কি? জনমনে প্রশ্ন – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০২:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কুড়িগ্রামে শিশুশ্রম সবচেয়ে বেশি কাহারোল উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়ন পরিষদের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত দিনাজপুর বীরগঞ্জে ৯ নং সাতোর ইউনিয়নের দলুয়া উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয় আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপির রোগমুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জে আর্দশ কৃষকদের মাঝে প্রশিক্ষণের শুভ উদ্বোধন সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত এক নারীর কাহারোলে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত বীরগঞ্জ উপজেলা রিক্সা ও ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের আয়োজনে মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি’র রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ‘জাম্ক ফুড, পথ ও খোলা খাবার না খেলে অনেক রোগ থেকে মুক্তি মিলে’ বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে ৩টি ওয়ার্ডে চলাচলে বিধি নিষেধ আরোপ বীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে এমপি গোপাল এর রোগমুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

প্রেস রিলিজ জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক স্বাক্ষরিতঃ দলের গঠনতন্ত্র মোতাবেক কি? জনমনে প্রশ্ন

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: শনিবার, ২৬ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৬৯ জন দেখেছেন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধিঃ
গত ২৩.১০.২০১৯ ইং তারিখে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসবে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল মৌলভীবাজার জেলা শাখার দায়িত্বশীল ৮ নেতার মিছিল পরবর্তী অগণতান্ত্রিক দোসরদের দৃষ্টিভঙ্গি, ব্যঙ্গাত্মক মনোভাব ও হাস্যরস হতবাক করেছে জেলার সর্বস্তরের নেতা কর্মীকে।
মৌলভীবাজার জেলার নেতৃত্বের রাজনৈতিক
মেরুকরণ ও চড়াই-উতরাই পার হয়ে দেশের ক্লান্তি লগ্নে এবং দলীয় স্বার্থে এই দুঃসময়ে দল যখন জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে অত্যন্ত সুশৃঙ্খলভাবে চলছে ও শক্তিশালী হচ্ছে, তখন জেলা বিএনপির সর্বোচ্চ সম্মানিত আসনে অধিষ্ঠিত থাকা নেতাদের এমন জনসম্পৃক্তহীন মিছিল দেখে জেলার সর্বস্তরের জনসাধারণের অনভিপ্রেত মন্তব্য ও সমালোচনা দেখে সবাই হতবাক এবং মর্মাহত হয়েছে।

বিএনপি নেতাদের কাছে বিভিন্ন মহলের কিছু প্রশ্ন?

১. বিএনপি জনসম্পৃক্ত দল কি না?

২. বিএনপি’র সাথে অঙ্গসংগঠনের নেতাদের সাথে সু- সম্পর্ক আছে কি না?

৩. দলীয় কর্মসূচি পালনে বিএনপি নেতারা অক্ষম কেন?

৪. বিএনপি কি সত্যি সত্যি বিভক্ত ও জনবিচ্ছিন্ন?
৫. জাতীয় স্বার্থে বিএনপি’র উদাসীনতা আর কত দিন?

৬. বিএনপি’র রাজনীতির ভবিষ্যৎ কি?

৭. মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি পরিচালনার দায়িত্ব আসলে কার কারা পরিচালনা করছেন?

৮.বিএনপি কি সত্যিকার অর্থেই বাস্তুহারা দলে পতিত হচ্ছে?

মিছিলে উপস্থিত গুরুত্বপূর্ণ নেতারা হলেন
১.সিনিয়র সহ-সভাপতি, ২.সাংগঠনিক সম্পাদক, ৩.প্রথম যুগ্ম সম্পাদক, ৪.সহ-সম্পাদক ৫.দপ্তর সসম্পাদক. ৬. প্রচার সম্পাদক, ৭.কমলগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও ৮.রাজনগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। যদিও প্রচার সম্পাদকের ছবি ব্যনারে আসে নাই! কারন তিনি নাকি উক্ত মিছিলের ছবি ধারণ করছিলেন। অত্যন্ত দুঃখজনক, অনভিপ্রেত ও দলের সম্মান হানিকর সমালোচনার পর মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি’কে আরেকটি সাংগঠনিক লজ্জায় ফেলেদিয়েছেন জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক!?

বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টালে দেখা গেল মিছিলে উপস্থিত থাকা জেলা বিএনপি’র প্রচার সম্পাদকের স্বাক্ষরিত প্রেস রিলিজ!?
যাতে তিনি জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সাংগঠনিকে দায়ী করে ঘটনা কাণ্ডজ্ঞানহীন ও অনভিপ্রেত হিসেবে বলেছেন এবং এই দায় কোনভাবেই জেলা বিএনপির সভাপতির উপর বর্তায় না মর্মে উল্লেখ করেছেন। অথচ গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের ঘোষিত যে কোন প্রেস রিলিজ প্রকাশ হবে দপ্তরের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিদের স্বাক্ষরিত হওয়ার মাধ্যমে? বোধগম্য হচ্ছে না যে, উনি প্রচার সম্পাদক হয়ে কিভাবে সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাংগঠনিক সম্পাদক’কে দায়ী করে প্রেস রিলিজ প্রকাশ করলেন!?

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি দেশে জনসম্পৃক্ত এবং শক্তিশালী গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল যা প্রমাণিত সত্য। বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া জেলে থাকা সত্ত্বেও সূদুর প্রবাসে থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ভাই প্রত্যক্ষ নির্দেশনায় দল যখন সাংগঠনিকভাবে ক্রমশ শক্তিশালী ও আন্দোলন সংগ্রামে বেগবান হচ্ছে তখন মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি’র গুরুত্বপূর্ণ ও দায়িত্বশীল নেতাদের এমন জনসম্পৃক্তহীন মিছিল রাজনীতিতে কিসের ইঙ্গিত বহন করে তা উনারাই হয়তো বলতে পারবেন?

দীর্ঘ সময় বয়ে চলা বিএনপি’র কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের রাজনীতিতে যদি এমন অবস্থা বিদ্যমান থাকে, অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা ও সাংগঠনিক নিয়ম কানুনকে পাশকাটিয়ে চলতে থাকে, দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে থাকা নেতাদের এমন একপেশে আচরণ অব্যাহত থাকে, তাহলে আর কত সময়, কত বছরে, কিভাবে দল ও দেশের স্বার্থে নেতৃবৃন্দ নিজেদের উজাড় করে দিবেন? অথচ সুদীর্ঘ সময়ধরে দল এবং দল ক্ষমতার বাহিরে, দেশনেত্রী জেলে, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান প্রবাসে!?

মনে রাখা প্রয়োজন দলের অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র বজায় রাখা, গঠনতন্ত্রের চর্চা করা, নেতৃত্বের প্রতি অবিচল আস্থা অক্ষুণ্ন রাখা, অভ্যন্তরীণ যোগাযোগ ব্যাবস্থার উন্নতি ও বৃদ্ধি করন এবং পারস্পরিক আস্থা- বিশ্বাস ও শ্রদ্ধাবোধ ছাড়া কোন দল এগিয়ে যেতে পারে নি, ভবিষ্যতে ও পারবে না?

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy