দিনাজপুর টেক্সটাইল মিলের বকেয়া পাওনা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাশ এখন শুধু হাতে পাওয়ার প্রত্যাশা দিনাজপুর টেক্সটাইল মিলের বকেয়া পাওনা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাশ এখন শুধু হাতে পাওয়ার প্রত্যাশা – সবুজ বাংলা নিউজ
  1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
মঙ্গলবার, ০৩ অগাস্ট ২০২১, ০৩:৪৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু শোকাবহ আগষ্টের প্রথম প্রহরে জেলা ছাত্রলীগের মোমবাতি প্রজ্জ্বলন অবৈধ ভাবে ভারত থেকে ফেরার পথে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী সীমান্তে ৭ বাংলাদশী আটক বীরগঞ্জে সামান্য বৃষ্টিতে ব্রীজ ভেঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ ,দুর্ভোগে এলাকার ৫০ হাজার মানুষ বীরগঞ্জে নব- গঠিত ছাত্রলীগের মোমবাতি প্রজ্বলন বীরগঞ্জে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্ততিমুলক সভা অনুষ্ঠিত শোকাবহ আগস্টের প্রথম সন্ধায় বীরগঞ্জ ছাত্রলীগের শ্রদ্ধা শোকাবহ আগষ্টের প্রথম প্রহরে কুড়িগ্রাম জেলা ছাত্রলীগের মোমবাতি প্রজ্জ্বলন চীনের বেল্ট অ্যান্ড রোড এবং আফগানিস্তান ৫৮ বছরে পা রাখল গৌরীপুর সরকারি কলেজ বীরগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনঃ সভাপতি অন্তু ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম মুর্শিদ ধর্ম নিরপেক্ষতাই বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগের পরিচয় -মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি উলিপুরে যৌন নিপীড়নের চেষ্টার মামলায় অভিযুক্ত মুনসুর আলী গ্রেপ্তার গার্মেন্টস খোলার খবরে যাত্রীদের ঢল বীরগঞ্জে প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত -১, ইউপি সদস্য সহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

দিনাজপুর টেক্সটাইল মিলের বকেয়া পাওনা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাশ এখন শুধু হাতে পাওয়ার প্রত্যাশা

বার্তা ডেক্স
  • প্রকাশের সময়: বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৭৮ জন দেখেছেন

দয়া রাম রায়, ষ্টাফ রিপোর্টারঃ বহু দিনের প্রত্যাশিত দিনাজপুর টেক্সটাইল মিল হতে বকেয়া পাওনা আজ হাতে পেতে যাচ্ছে শ্রমিকরা। দুঃসময়ে এ টাকা টাই পরিবারে অনেক সহযোগীতা করবে।
জানা গেছে, দিনাজপুরের একমাত্র ঐতিহ্যবাহী ভারী শিল্প প্রতিষ্ঠান দিনাজপুর টেক্সটাইল মিলস্ স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু ভারত থেকে সাতটি মিল দান হিসেবে পান তদমধ্যে দিনাজপুর মিল একটি, ১৯৭৫ সালের ১লা মার্চ ৩৬ একর ৫৪ শতক জমির উপর মিলটি স্থাপিত হয়। মিলের ভিক্তি প্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন আওয়ামীলীগের প্রয়াৎ বস্ত্র মন্ত্রী কামরুজ্জামান। প্রাথমিক ভাবে মিলটি ২৫ হাজার ভারতীয় টাকু দিয়ে মিলটি চালু হয়। ১৯৮০ ইং সালের ১৬ জুন মিলটি বাণিজ্যিক ভাবে উৎপাদন শুরু হয়। শ্রমিক কর্মচারী-কর্মকর্তা মিলে সারা দেশের পনের শত মানুষ কাজ পায়। মাথা ভারী প্রশাসন আর আমলাতান্ত্রিক জটিলতার কারণে মিলটি ভাল মানের সুতা উৎপাদন হওয়ার পরেও রাষ্ট্রীয় ভাবে চালাতে ব্যর্থ হয় তৎকালীন সরকার। পরবর্তীতে সার্ভিস চার্জের মাধ্যমে ১৫ বছর চালানোর পর বিগত ২০০৮ সালের ৩রা মার্চ মিলটি ৫ কোটি টাকা লোকসান দেখিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়। কর্ম হারায় ১৫ শত মানুষ। তাদের সেচ্ছায় অবসর গ্রহনের নামে কর্মচ্যুত করা হয়। তাদের চাকুরী থেকে বিদায় বেলায় অনেক পাওনাদি কেটে রাখা হয়, তার মধ্যে কিছু পেলেও আরও পাওনা রয়েছে। এই পাওনাদি পাওয়ার অপেক্ষায় থেকে অনেক শ্রমিক রোগে শোকে মৃত্যু বরন করেন। গত ৬ মাস পূর্বে সুন্দরবন ইউ,পি মাঠে বিভিন্ন এলাকার শতাধিক পাওনাদার শ্রমিক একত্রিত হয়ে পাওনা আদায়ের উপর তদারকির জন্য ৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি কারা হয়। তারা হলেন, হামিদুর ইসলাম আহবায়ক, দয়ারাম রায় যুগ্ন-আহবায়ক, মোঃ আঃ আজিজ, নন্দ কুমার রায়, সুবাস কুন্ড সদস্য। কমিটির লোকজন ২ মাস পূর্বে মিলের প্রধান নির্বাহীর নিকট পাওনা আদায়ের আবেদন পত্রে মাননীয় হুইপ ইকবালুর রহিম এমপির সুপারিশ নিয়ে মিল কর্তৃপক্ষের কাছে জমা দেওয়া হয়। অপর দিকে ইউ,পি চেয়ারম্যান অশোক কুমার রায় ও মিলের প্রধান নির্বাহী এমদাদুল হকের সঙ্গে ইউ,পি মিলতায়নে শ্রমিকদের বকেয়া পাওনাদির বিষয়ে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সে সভায় মিল নির্বাহী এমদাদুল হক অতি দ্রুততার সহিত প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি বি.টি.এম.সিতে পাঠাবেন। সে মতে মিল নির্বাহী কাজ করেন। গত ১৩ অক্টোবর মিলস্ নির্বাহী পাওনাদার কমিটির যুগ্ন-আহবায়ক দয়ারাম রায় কে অফিসে ডেকে পাওনাদির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে প্রাপ্ত পত্র থেকে জানান, মঞ্জুরী কমিশনের শুধু বকেয়া বিল ২৮৭ জনের পাওনা ৩ লক্ষাধিক টাকা অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাশ হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয়ে চেক বি.টি.এম.সিতে হস্তান্তরিত হলেই দিনাজপুর টেক্সটাইল মিলের পাওনাদি পরিশোধ করা সম্ভব হবে। এর পর পানাদার শ্রমিকরা, তাদের জন্য হুইপ ইকবালুর রহিম এর সুপারিশ কাজে আসায় তাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন শ্রমিকবৃন্দ। অপর দিকে দুস্থ শ্রমিক গন অর্থ মন্ত্রণালয় ও বি.টি.এম.সি কর্তৃপক্ষের কাছে অসহায় শ্রমিকদের আতœনাতে এগিয়ে আসার জন্য সবিনয় অনুরোধ জানিয়েছেন শ্রমিকরা। মিলটি চালু করার জন্য সরকার বাহাদুরের কাছে শ্রমিক সাধারন ও দিনাজপুর বাসী আহবান জানিয়েছেন।

এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy