1. [email protected] : সবুজ বাংলা নিউজ : সবুজ বাংলা নিউজ
  2. [email protected] : বার্তা বিভাগ : বার্তা বিভাগ
মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ১০:৫৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
সাপাহারে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের শুভ উদ্বোধন মাছে ভাতে বাঙালি-মাছ ভাত দুটাই নিশ্চিত করেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা-মনোরঞ্জন শীল গোপাল এমপি বীরগঞ্জে সিনজেনটা ফাউন্ডেশনের সুরক্ষা প্রকল্পের শষ্য বীমা দাবির অর্থ বিতরণ বীরগঞ্জে লিফদের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ একজন বিবেকবান মানুষ কখনো শুধু নিজের কথা চিন্তা করতে পারে না বীরগঞ্জে মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে ল্যাপটপ বিতরন সবুজ বাংলা নিউজ  এর  কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধি  , রুহুল আমিন রুকু ,সড়ক দুর্ঘটনায় আহত, তার সুস্থতার জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিল দিনাজপুরের ছেলে মেডিকেলে চান্স প্রাপ্ত নিক্কনের শিক্ষা বিষয়ক যাবতীয় সহযোগিতার দায়িত্ব নেন জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ বীরগঞ্জে ধর্মীয় সম্প্রীতি সমাবেশে

যমুনা ইছামতি নদীর ভাঙনের কবলে সিরাজগঞ্জ সলঙ্গার নলকা কায়েম গ্রামের বিদ্যালয়

প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময়: রবিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩০ জন দেখেছেন

ফারুক আহমেদ,সিরাজগঞ্জ থেকে. সিরাজগঞ্জ যমুনা ইছামতি নদী ভাঙন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। ক্ষতি হয়েছে অনেক কৃষকের জমি। যমুনা ইছামতি নদীর ভাঙনে কবলে হুমকির মুখে পড়েছে সিরাজগঞ্জ সলঙ্গার নলকা কায়েম গ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে রায়গঞ্জ পজেলার চর নলকা ইউনিয়নের নলকা কায়েম এলাকায় এক কিলোমিটারজুড়ে যমুনা ডাল ইছামতি নদীর ভাঙন দেখা দেয়। এতে কয়েকটি বসতবাড়ি বিলীন হয়েছে। ভাঙনের মুখে পড়ে আরও অনেক বাড়িঘর ও একটি নলকা কায়েম গ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। নদীর তীর থেকে মাত্র ৩ থেকে ৪ হাত দূরে আছে নলকা কায়েম গ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতল ভবনটি। যে কোনো সময় ভবনটি নদীতে বিলীন হয়ে যেতে পারে। হুমকির মুখে পরে আছে স্কুলটি। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেক জানান,বিদ্যালয়টি নদীভাঙনের মুখে পড়ায় গত কয়েক দিনে আগে আসবাবপত্র ও প্রয়োজনীয় জিনিসিপত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী রয়েছে ৪০০ জন। এসব অনেক শিক্ষার্থীদের তাদের অবিভাবকেরাই স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন। তাই বর্তমানে অনেক শিক্ষার্থীদের সংখ্যা কমে গেছে। আবার উপস্থিতি অনেক শিক্ষার্থীদের এখন ভয়ে খোলা আকাশের নিচে পাঠদান করাতে হচ্ছে। প্রধানশিক্ষক আব্দুল খালেক আরো জানান, বিদ্যালয় ভবনটি যমুনা ইছামতি নদীর ভাঙনের কবলে হুমকির মুখে পড়েছে সেই বিষয়টি উপজেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। কায়েম গ্রামের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল খালেকসহ স্থানীয় লোকজন প্রধানমন্ত্রীসহ স্থানীয় এমপি মহাদয় ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি বিদ্যালয় রক্ষার্থে বিদ্যালয়ের প্রতি সু-নজর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

  • 1
    Share
এ বিভাগের আরও সংবাদ:
© All rights reserved © 2019 Sabuj Bangla News
Web Designed By : Prodip Roy