মেয়েটার নাম তাসলিমা বয়স ২৮/৩০

0
16

কি বলে শুরু করবো কি বলে শেষ করবো কিছুই বুঝতেছিনা।
মেয়েটার নাম তাসলিমা
বয়স ২৮/৩০
এক বছর আগে বুকে পেটে প্রচন্ড ব্যাথা হওয়ায় ডাক্তারের কাছে গেলে ডাক্তার টেস্ট করে আলসার হয়েছে বলে জানায়। তখন চলে আলসারের চিকিৎসা।
এতে শরীরের কোন উন্নতি না হলে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিলে তারা আলসারের অপারেশন করে।
অপারেশন করার পরে অবস্থা আরো ভয়াবহ হলে বিভিন্ন ডাক্তার কবিরাজ দেখিয়ে একটা সময় জানতে পারে তার ক্যান্সার হয়েছে।
ততদিনে ভিটা মাটি যা ছিল বিক্রি করা শেষ!
বর্তমানের তার ওজন ১৪ কেজি!
চারটি কেমোথেরাপি দেয়ার পরে আর্থিক কারনে চিকিৎসা বন্ধ হয়ে যায়।
সে স্পষ্ট করে কথা বলতে পারে
সে বাচতে চায় তার চার বছর বয়সী বাচ্চাটাকে রেখে সে কিছুতেই মরতে চায়না।
ডাক্তার বলেছে টাকার জন্য চিকিৎসা করতে পারছেনা। চিকিৎসা করলে এখনো ভাল হওয়া সম্ভব।
আমার ফ্রেন্ড লিস্টে যারা আছেন তারা জানেন আমি সহজে কারো কাছে হাত পাতিনা ছোট খাটো ব্যাপার হলে নিজেই চেস্টা করি।
কিন্তু এই ক্যান্সারের ব্যয়বহুল চিকিৎসার খরচ আমার একার পক্ষে বহন করা সম্ভব না।
আমি ১০হাজার টাকা হাতে দিয়ে চিকিৎসা শুরু করতে বলে আসছি
আর কথা দিয়ে আসছি তার চিকিৎসা হবে,
সে বিনা চিকিৎসায় মরবেনা।
কিন্তু কিভাবে হবে কি করতে পারবো আমি কিছুই জানিনা।
আমি জানি এই লগডাউনের মধ্যে সবাই বিপদে আছেন। তাই আপনারা যে যা পারেন দিয়ে মেয়েটাকে বাচান।
সবাই মিলে চেস্টা করলে মেয়েটা হয়তো বেচে যাবে।
কোন লজ্জা নাই যে যা পারেন
কারো ইচ্ছা হলে স্বশরীরে গিয়েও দেখে আসতে পারেন।
হোক ৫০ টাকা কিংবা ১০০ টাকা তাও পাঠিয়ে দিয়ে শরিক হোন যারা টাকা দিতে পারবেন না তাদেরও লজ্জার কিছুই নাই।
সেয়ার করে পৌছে দিন কোন হৃদয়বান ব্যাক্তির কাছে যেমনটি হয়েছিল ক্যান্সার রোগী নুরুন্নাহারের ক্ষেত্রে।
১৬ শত সেয়ার করার ফলে পৌছে গিয়েছিল এক হৃদয়বান ব্যক্তির কাছে জিনি একাই এক লক্ষ আশি হাজার টাকা দিয়ে পুরো কেমোথেরাপির দায়িত্ব নিয়েছিলেন।
লন্ডন আমেরিকা কানাডা বাংলাদেশ সহ সবার সহায়তায় চলে আসছিল প্রায় চার লক্ষ টাকা। সেই টাকায় নুরুন্নাহার এখন ১০০% সুস্থ হয়ে সন্তানদের নিয়ে ভাল আছে।
আজো আপনাদের কাছে সেই সহযোগিতা টাই চাচ্ছি প্লিজ এগিয়ে আসুন চার বছরের একটা বাচ্চার কাছে তার মাকে ফিরিয়ে দেয়া জরুরী……
.
.
বিকাশ নাম্বার ০১৬৮০০৫৮২৩৫
যারা বিকাশ করবেন অবশ্যই কমেন্ট অথবা ইনবক্সে
লাস্ট তিনটা নাম্বার দিয়ে জানিয়ে দিবেন.