ব্রহ্মপুত্র কেড়ে নিয়েছে তিন শতাধিক পরিবারের ভিটা মাটি

0
4

রুহুল আমিন রুকু, কুড়িগ্রাম জেলাপ্রতিনিধিঃ

চলতি বছরের বন্যায় প্রচন্ড স্রোতে ব্রহ্মপুত্র নদীর ভয়াল থাবায় কেড়ে নিয়েছে অনেকের পুরাতন বসতভিটা আবাদি জমি। নতুন করে বাড়ি ঘর নির্মাণ করার সামর্থ্য নেই অনেকের।
জানা গেছে, কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার নদ নদ নদী দ্বারা বিচ্ছিন্ন বেগমগঞ্জ ইউনিয়নে২০২০ ইং সালের বন্যায় প্রচন্ড স্রোত উজানি ঢল নামায় ব্রহ্মপুত্র নদে ভয়াবহ ভাঙ্গন দেখা দেয়। এতে নদের সন্নিকটে মোল্লারহাট সংলগ্ন উত্তর বালাডোবা গ্রামে সপ্তাহের ব্যবধানে তিন শতাধিক পরিবারের একটি গ্রাম পুরাতন বসতভিটা, পারিবারিক কবরস্থান, দু’টি মসজিদ ও আবাদি জমি নদেগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। মাথা গোঁজার ঠাঁই না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ে পরিবারের লোকজন। ভাঙ্গনের শিকার আব্দুল মালেক আব্দুল আলিম সায়রা বেগম চায়না বেগম, হাফিজা বেগম, সুরতি বেগম, আব্দুল খালেক, আবুল কালাম, ইদু দেওয়ানী ও ছুরমান সহ প্রায় তিন শতাধিক পরিবারের অনেকেই পার্শ্ববর্তী অন্যের জায়গায় অস্থায়ীভাবে কোন রকমে ঠাই নিয়ে দিনাতিপাত করছে। আর্থিক সংকটে কিভাবে ঘরবাড়ি নির্মাণ করবে তাদের দুশ্চিন্তা একদিকে থাকার স্থান অন্যদিকে খাবার সংকটে পড়েছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সংরক্ষিত মহিলা সদস্য মোছা রাবেয়া বেগম জানান নদী ভাঙ্গনে ও খাদ্য অভাব চরম সঙ্কটে পড়েছে ভাঙ্গনকবলিত লোকজন ঈদ উপলক্ষে ১০ কেজি চাল ছাড়া কিছুই দিতে পারিনি। তিনি আরো জানান ইউপি চেয়ারম্যান বেলাল হোসেনকে সরেজমিন দেখানো হলেও তার কাছে কোনো বরাদ্দ নেই বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন। এলাকাবাসী বিষয়টি ঊর্ধ্বতন মহলের নিকট দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য দাবি জানিয়েছেন।

  • 1
    Share