বীরগঞ্জে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি বাড়ছে করোনা রোগী

0
0

বিকাশ ঘোষ,বীরগঞ্জ(দিনাজপুর) প্রতিনিধি :

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে কোভিড-১৯) করোনার প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই আগের মতই চলাফেরা শুরু করেছে সর্বস্তের মানুষ,সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে না অনেকেই। সেই সাথে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি নিয়ে ঘরে,বাহিরে,যানবাহন ও হাট – বাজারে লোকজনকে চলাচল করতে দেখা যাচ্ছে। সারাদেশের মত গত ৩ মাস ১৫ দিনে বীরগঞ্জে করোনা রোগে আক্রান্ত হয়েছে প্রায় ২৫ জন। উপসর্গ নিয়ে মারা গেয়েছে ১জন পুলিশ সদস্য। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্তের মধ্যে রয়েছে ডাক্তার,পুলিশ, ব্যাংকার। গত ৩০ মে স্বাস্থ্য অধিপ্তরের বিজ্ঞপ্তি সংক্রমণ প্রতিরোধ আইন ২০১৮ অনুযায়ী ঘরের বাহিরে চলাচলের ক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার ও অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। তা না হলে সংক্রামণ রোগ(প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন,২০১৮ এর ধারা ২৪ (১) ও (২) অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর এই আইন বাস্তবায়ন করবে জেলা- উপজেলা প্রশাসন ও যথাযথ কর্তৃপক্ষ। আইনের ধারা অনুযায়ী কেউ মাস্ক না পরে বের হলে ৬ মাসের জেল অথবা এক লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে। এছাড়া কেউ যদি এই নির্দেশনা বাস্তবায়নে বাঁধা প্রধান বা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেন তাহলে ৩ মাসের জেল ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হবে। উক্ত বিধি লঙ্গন কারীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনের একটুও নজরদারী তোয়াক্কা করছেনা অনেকেই। বিশেষ করে করোনার মধ্যে কর্মক্ষেত্রে স্বাস্থ্যবিধি মানার সুযোগ পাচ্ছে না শ্রমজীবী মানুষ। কর্মস্থলে আসা আর বাড়ি ফেরার পথে পেরোতে হয় যানবাহনে গাদাগাদি করেই চলাচল করছে। তাদের কাছে মাস্ক না পরার কারণ জানতে চাওয়া হলে দেখাচ্ছেন নানা অজুহাত। বীরগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় মানুষ মাস্ক না পরে চলাচল করছেন। মুখে মাস্ক না পরা একজনের সঙ্গে কথা বলেল তিনি জানান, বাড়ী থেকে তারাহুরা করে বাজার করতে এসেছি তাই মাস্ক নিয়ে আসতে পারিনি। অপর একজন বলেন,করোনাভাইরাস নিয়ে আমি ভয় পায় না। বীরগঞ্জ দৈনিক বাজারের এক মুদি দোকানের ব্যবসায়ী বলেন, মাস্ক ছাড়াই সারাদিন পণ্য বিক্রি করি,মাস্ক পরতে বিরক্ত লাগে।

  • 68
    Shares