বীরগঞ্জে নিষিদ্ধ পলিথিনে বাজার সয়লাব

0
11

বীরগঞ্জ, দিনাজপুর থেকে বিকাশ ঘোষঃ

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ বাজারসহ এলাকার বিভিন্ন হাট -বাজারে হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে পলিথিন। এসব নিষিদ্ধ পলিথিনের ব্যবহার বেড়েই চলছে নিত্যদিন। পৌরশহরের বিভিন্ন এলাকার অসাধু ব্যবসায়ীরা বেপরোয়াভাবে ব্যবহার নিষিদ্ধ পলিথিন আমদানি করে দেদারছে ব্যবসা করলেও যেনো দেখার কেউ নেই। বীরগঞ্জ উপজেলার উল্লেখ্যযোগ্য ৪০টি হাট- বাজারের মধ্যে বীরগঞ্জ পৌরসভা হাট,দৈনিক বাজার, বটতলী হাট, মহানপুর হাট, ২৫ মাইল হাট, দলুয়া হাট, ২৮ মাইল বাজার, রথের বাজার, মুরারিপুর বাজার, কবিরাজ হাট, লাটেরহাট, হাবলুহাট, চৌধুরীর হাট, ঝারবাড়িহাট,বাহাদুর হাট, কল্যাণী হাট, প্রেমবাজার, কাচারিপাড়া নতুন হাট, গোলাপগঞ্জ হাট, ডাঙ্গারহাট, খানসামা ঘাটপাড় বাজার ও সনকা হাট- বাজারের মুদি দোকানগুলোতে খোঁজ খবর নিয়ে যানা গেছে, পাইকারি ও খুচরা বিক্রয় করা হচ্ছে। এই নিষিদ্ধ পলিথিন বীরগঞ্জ এলাকার চিড়া,মুড়ি,গুড়,মিষ্টি, মাছ,সবজি ও মুদি দোকানে বেশি ব্যবহার করা হচ্ছে। ভোক্তারা দোকান থেকে কোনো পণ্য কিনলেই দোকানদাররা পলিথিনের প্যাকেটে ভরে সরবরাহ করছে। ভোক্তারা সেই পলিথিনের প্যাকেগুলো ব্যবহার শেষে যেখানে -সেখানে ফেলে দিচ্ছে এতে পরিবেশের মারাত্মকভাবে ক্ষতি হচ্ছে। বর্জ্য পলিথিন মাটিতে পড়ে একদিকে যেমন মাটির উর্বর শক্তি নষ্ট হচ্ছে, তেমনি ড্রেন,খাল, বাঁওড় ও বিলে নিষিদ্ধ পলিথিনের প্যাকেট পড়ে পানির স্বাভাবিক গতি বাঁধাগ্রস্থ হচ্ছে। যেসব পলিথিন সাধারণত ব্যবহার করা হচ্ছে, সেগুলো অত্যন্ত নিম্নমানের। এজন্য মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকি রয়েছে বলে জানা গেছে। বীরগঞ্জ বাজারের নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন দোকানদার বলেন, নাম বলতে পারবো না এমন কিছুলোক এ বাজারে পলিথিন প্যাকেট বাজারের দোকানদার নিকট সসরবরাহ করে থাকেন। আমরা তাদের নিকট থেকে কিনে খুচরা, পাইকারি বিক্রিসহ ভোক্তাদের মাঝে সরবরাহ করি। এদিকে, স্থানীয় সচেতন সমাজ বলছে, বিষয়টির দিকে সরকারি তরফ থেকে কঠোর নজরদারি করা হলে আবারো বন্ধ হবে নিষিদ্ধ পলিথিন প্যাকেটের ব্যবহার। তাতে উন্নতি হবে পরিবেশের। তাই বিষয়টির দিকে নজর দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে। এবিষয়ে বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মোহাম্মদ মহাসীন বলেন, পলিথিন ব্যবহারে ক্যান্সারসহ মানুষ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে । পলিথিন মানবদেহের জন্য মারাত্মক ক্ষতি কারক, পলিথিন সকলকে পরিহার করা উচিত।

  • 11
    Shares