বীরগঞ্জে নানা অজুহাতে বাড়ছে কাঁচা মরিচের দাম

0
25

বিকাশ ঘোষ,বীরগঞ্জ(দিনাজপুর) প্রতিনিধি :

দিনাজপুরের বীরগঞ্জে কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি বৈরি আবহাওয়াসহ নানা অজুহাত দেখিয়ে বেড়েই চলছে কাঁচা মরিচের দাম। বীরগঞ্জ পৌরসভার দৈনিক বাজারে ও উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট বাজারগুলোতে কাঁচ মরিচের বাড়তির দিকে রয়েছে।কয়েকদিনের ব্যবধানে নানা অজুহাত দেখিয়ে কাঁচা মরিচের দাম ১৫০ থেকে ২০০ পর্যন্ত বিক্রি করতে দেখা গেয়েছে। এতে করে বিপাকে পড়েছে ক্রেতাসাধারণরা। স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আমদানিকারকরা বলছেন, বৈরি আবহাওয়ায় সরবরাহ কম থাকায় দাম বৃদ্ধি কাঁচা মরিচের। উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজার ঘুরে দেখা যায়, বিভিন্ন জেলা থেকে আমদানিকৃত প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ১৫০- ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। কয়েক আগেও এসব কাঁচা মরিচ কেজি প্রতি ৯০ -১০০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল। কৃষকরা দাবি করছে বন্যা ও বৃষ্টিতে ক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এজন্য রান্নার অপরিহার্য এ পণ্যটির দাম ব্যাপক চড়া। উপজেলার বিভিন্ন হাটবাজারের খুচরো মরিচ ব্যবসায়ীরা বলছেন,এবার দীর্ঘসময় ধরে বন্যা হয়েছে। এর সঙ্গে দেশের সব অঞ্চলেই বৃষ্টিও হয়েছে। এতে অর্ধেকের বেশি মরিচের ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। তারা বলছেন, ক্ষেতে পানি জমে মরিচ গাছ পচে যাওয়ার কারণে বাজারে কাঁচা মরিচের সরবরাহ কমেছে। যে কারণে মরিচের দাম বেড়ে গেছে। পৌরসভার দৈনিক বাজারের কাঁচা সবজি ও মরিচ বিক্রেতা মোঃ আমজাদ হোসেন জানান,বন্যা আর বৃষ্টি মরিচ ক্ষেত নষ্ট করে ফেলেছে। প্রায় সব অঞ্চলেই মরিচের ক্ষেতে পানি জমে গাছ পচে গেছে। এতে স্বাভাবিকভাবে বাজারে কাঁচা মরিচ সরবরাহ কমে গেছে। আর সরবরাহ কমলে দাম বাড়বে এটাই স্বাভাবিক। তিনি বলেন, আড়তে আসা চাষিদের সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছি,অর্ধেকেরও বেশি ক্ষেতে পানি জমে মরিচের গাছ পচে গেছে। সহসা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সম্ভবনা কম।

  • 32
    Shares