নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে গৃহ বধুকে পিটিয়ে হত্যা। স্বামী সহ আটক ৩

0
8

মোঃ রাব্বি ইসলাম আব্দুল্লাহ, জেলা প্রতিনিধী,নীলফামারী।

নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে গৃহবধু ওমেনা খাতুনকে (২০) পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে স্বামীসহ তিনজনকে, গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন গৃহবধুর স্বামী আল আমীন (২৬), শশুড় জহুরুল মিয়া (৬০) এবং শাশুড়ি অসনা বেগম (৫৮)।
বুধবার ভোর রাত চার টার দিকে উপজেলার রণচী ইউনিয়নের সোনাখুলি ডাঙ্গাপাড়ায় শ্বশুরবাড়ি থেকে গৃহবধুর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দুপুরের জেলা মর্গে পাঠায় পুলিশ।
তাদেরকে আত্নহত্যার প্ররোচনার মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আব্দুল আউয়াল।
নিহত ওমেনা খাতুনের বাবা আয়নাল হোসেন গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে অভিযোগ করে বলেন,“রাত ১১ টার দিকে এলাকাবাসীর কাছ থেকে মেয়ের মৃত্যুর খবর পাই। এসে জামাই আল আমীন ও তার মা অশনা বেগমকে বাড়িতে না পেয়ে আমার সন্দেহ হলে পুলশে খবর দেই। পরে পুলিশ এসে মেয়ের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।
তিনি বলেন,“বিয়ের সময় যৌতুকের দাবির ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করি। পরবর্তীতে আরও ৫০ হাজার টাকার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। টাকা না পেয়ে বিভিন্ন সময়ে মেয়ের স্বামী, শ্বশুর ও শাশুরী মিলে আমার মেয়ের ওপর শারিরীক ও মানষিক নির্যাতন চালাতে থাকে। মঙ্গলবার তারা আমার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যার পর মরদেহ ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার খবর প্রচার করে। আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।”
এলাকাবাসী জানায়, গত ১৬ মাস আগে ইউনিয়নের সোনাখুলি ডাঙ্গপাড়া গ্রামের আয়নাল হোসেনের মেয়ে ওমেনা খাতুনের সঙ্গে একই গ্রামের জহুরুল মিয়ার ছেলে আল আমীনের বিয়ে হয়। গত ২৬ দিন আগে তাদের এক ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ওমেনার মৃত্যুর খবর পাওয়া গেলে বুধবার সকালে পুলিশ এসে মরদেহ উদ্ধার করে নিয়ে যায়।
কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জানান,‘গৃহবধু ওমেনা খাতুনের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় ওই গৃবধুর বাবা আয়নাল হোসেন বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচনার একটি মামলা দায়ের করায় গৃহবধুর স্বামী, শশুড় এবং শাশুড়িকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’

  • 6
    Shares