নীলফমারী সরদ উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ র্শীষক স্বরন সভা

0
6

মোঃ রাব্বি ইসলাম আব্দুল্লাহ,নীলফামারী জেলা প্রতিনিধী।

বাংলাদেশ আওয়ালীগ, নীলফামারী সদর উপজেলা শাখার আয়োজনে ৩১ আগস্ট-২০২০ইং তারিখ সোমবার নীলফামারী টেলিফোনে অফিস প্রাঙ্গন মাঠে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ র্শীষক স্বরন সভা অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ র্শীষক স্বরন সভা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব আসাদুজ্জামান নূর,মানননীয় সংসদ সদস্য,নীলফামারী-২, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জনাব দেওয়ান কামাল আহমেদ, সভাপতি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নীলফামারী জেলা শাখা, জনাব এ্যাড. মমতাজুল হক, সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ নীলফামারী জেলা শাখা, জনাব মসফিকুল ইসলাম রিন্টু সভাপতি পৌর আওয়ামী লীগ নীলফামারী, জনাব আরিফ হোসেন মুন, সাধারন সম্পাদক পৌর আওয়ামী লীগ নীলফামারী, উক্ত সভায় সভাপতিত্ব করেন জনাব মোঃ আবুজার রহমান, সভাপতি উপজেলা আওয়ামী লীগ নীলফামারী, সভায় সঞ্চলনা করেন জনাব মোঃ ওয়াদুদ রহমান, সাধারণ সম্পাদক,সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ নীলফামারী। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ভিডিও কনফারেন্স মাধ্যমে উপস্থিত হয় বক্তব্য রাখেন। তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধু ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত তিনি ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন এবং দেশকে স্বাধীন করেন। বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক রাজনীতির দল গঠন করার জন্য তিনি সচেষ্ট হন। যার কারণে তিনি মুসলিম আওয়ামী লীগ থেকে আওয়ামী লীগ নামকরণ করেন। কেননা মুসলিম আওয়ামী লীগ নাম থাকলে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান-ইত্যাদি জাতি তারা কেউ এই রাজনৈতিক দলে আসতে চাইবে না, তিনি চান সকল ধর্মের ব্যক্তিরাই যেন দলের মধ্যে থাকে তাই তিনি মুসলিম আওয়ামী লীগ থেকে আওয়ামী লীগ নামকরণ করেন এভাবে একটি অসম্প্রদায়িকতার মধ্য দিয়ে তিনি সকল জাতিকে একটি রাজনৈতিক দলের মধ্যে নিয়ে আসেন। বঙ্গবন্ধুর সকল শ্রেণীর মানুষের মধ্যেই রাজনৈতিক নেতৃত্বের স্থাপন করেন কেননা অতীতে দেখা গিয়েছে রাজনীতি করতো শুধু উচ্চশ্রেণীর রাজা,বাদশা, জমিদার ইত্যাদি শ্রেনীর ব্যক্তিরা কিন্তু বর্তমান মধ্যশ্রেণী নিম্ন শ্রেণীর সকল শ্রেনী শিক্ষিত ব্যক্তিরা রাজনীতি করতে পারে সে ব্যবস্থা করেছেন। বঙ্গবন্ধুর গুণাবলি কথা সারাদিন ও বলে শেষ করা সম্ভব হবে না, তিনি একজন খাটি মুসলমান ছিলেন, প্রতিটি সফল মূলক কথাতে তিনি বলতেন ইনশাআল্লাহ। স্বরন সভায় ভিডিও কনফারেন্স মাধ্যমে যুক্ত হয়ে বক্তব্য রাখেন নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জনাব দেওয়ান কামাল আহমেদ, অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন জনাব এ্যাড. রমেন্দ্রনাথ বর্মন (বাপ্পী), সভাপতি জেলা যুবলীগ নীলফামারী,জনাব মোঃ শাহিদ মাহামুদ, সম্পাদক, জেলা যুবলীগ নীলফামারী, সদর উপজেলার সকল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদক সহ সকল স্তরের নেতা কর্মীবৃন্দ। আলোচনা শেষে জনাব আসাদুজ্জামান নূর ভাইয়ের সহযোগিতায় প্রয়াত সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুল ইসলামের দুই সন্তানকে ১ লক্ষ টাকা ৬ জন দলীয় নেতাকর্মীকে চিকিৎসার জন্য ৫ হাজার থেকে ২০ হাজার পষন্ত ৮০ হাজার টাকা একজন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক চিকিৎসা সমস্ত দায়িত্ব একজন নারীকে রিকসা ভ্যানসহ ব্যবসার মালামাল ক্রয়ের জন্য অর্থ প্রদান করা হয়।

  • 8
    Shares