দিনাজপুরে করোনা ভাইরাস দুর্যোগকালীন সাংবাদিকদের আর্থিক সহায়তা প্রদান

0
68

মো. মিজানুর রহমান (ডোফুরা), স্টাফ রিপোর্টার:

প্রানঘাতি করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশের সর্বস্তরের মানুষ চেষ্টা করে যাচ্ছে। দেশের রাজনৈতিক, পুলিশ, ডাক্তারের পাশাপাশি সাংবাদিকরাও করোনা যুদ্ধে যোদ্ধার পরিচয় দিয়েছে। করোনা যুদ্ধে বীরের মত ঝাঁপিয়ে পড়েছে করোনা যোদ্ধা সাংবাদিকরা। সমাজের সব পেশার লোকই করোনা মোকাবিলায় কাজ করছে। কিন্তু এদের মধ্যে সাংবাদিক, চিকিৎসক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বেশি ঝুঁকিতে।

সাংবাদিকরা করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের যেভাবে তথ্য দিয়ে যাচ্ছেন, সেটা প্রশংসার। যেকোনো দুর্যোগ মোকাবিলায় সাংবাদিকরা অপরিসীম দায়িত্ব পালন করে। তেমনি করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে তাঁরা সর্বদা আপডেট তথ্য দিয়ে থাকেন।

সাংবাদিকরা নানাভাবে জনসাধারণকে সচেতন করে যাচ্ছেন, যা করোনার সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করবে বলে মনে করছি। একটু চিন্তা করুন, কীভাবে আমরা করোনার নানাবিধ তথ্য পাই। যেমন করোনার লক্ষণ, প্রতিকার, প্রতিরোধ ও করোনায় কোথায় কী ঘটছে, কীভাবে অন্য দেশ করোনা মোকাবিলায় সফল হয়েছে ইত্যাদি। তাঁরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের সহযোগিতা করে থাকেন। তাঁরা গ্রামের কোনো এক ক্ষুদ্র জায়গা থেকে শুরু করে বিশ্বের যেকোনো এলাকার সংবাদ সংগ্রহ করেন। সেই তথ্যই আমরা পাই। তাই দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সর্বদা সাংবাদিকদের খোঁজ খবর রাখছেন। তাই তিনি আমাদের মধ্য দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানের সাংবাদিকদের কিছু আর্থিক সহযোগীতা করে যাচ্ছেন।

১২ মে মঙ্গলবার দুপুর ১২ টায় দিনাজপুর বাসুনীয়াপট্রিস্থ জেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে জেলা ত্রাণ কমিটির উদ্যোগে ও জেলা আওয়ামীলীগের আয়োজনে ৩০ জন সাংবাদিকদের আর্থিক সহায়তা দেওয়ার সময় দলীয় নেতাকর্মীরা উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

করোনা ভাইরাস দুর্যোগকালীন দিনাজপুরের সাংবাদিকদের মাঝে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেন – দিনাজপুর জেলা ত্রাণ কমিটির আহবায়ক মো. আলতাফুজ্জামান মিতা ও সদস্য সচিব মোঃ ফারুকুজ্জামান চৌধুরী মাইকেল। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ত্রাণ কমিটির সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের শিক্ষা ও মানব সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক কামরুল হুদা হেলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ রফিকুল ইসলাম, ত্রাণ সম্পাদক মীর শরীফ উদ্দিন মনি, প্রচার সম্পাদক রনজিৎ কুমার সাহা, সদস্য এ্যাড. সাইফুল ইসলাম, রুর‌্যাল জার্নালিষ্ট ফাউন্ডেশনের সভাপতি মোঃ ফারুক হোসেন ও শিশু সংগঠক মনিরুজ্জামান জুয়েল।