থেমে নেই আফসানা আফরোজ ইমু’র সমাজসেৰা

0
12

একজন নারী হয়েও কখনো আর অন্যসব নারীদের মতো পিছিয়ে থাকতে মোটেই রাজি নন দিনাজপুর পৌরএলাকার কালিতলা নিবাসী দুই সন্তানের জননী আফসানা আফরোজ ইমু, সেই ২০১০ সাল থেকে দিনাজপুরবাসীর মননের গণসচেতনতা মঞ্চে তার আবির্ভাব, কখনো নৃত্যশিল্পী রুপে,কখনো ভরাট রুপের রুপায়িত চলচিত্র বা মঞ্চ নাটেকর দিগজয়ী নন্দনী নাইকা রুপে।গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের আধুনিকায়নের রচয়িতা হাজার বছরের শ্রেষঠবাংগালী, জাতির জনক বংগবন্ধু তনয়া বর্তমান প্রধানমন্ত্রী মমতাময়ী জননেত্রী শেখা হাসিনার কর্তৃক প্রদত্ত জনমনের ইচছা’র প্রতিচছা দেশে ৭১’সাধীনতা বিরোধী শক্তি অর্থাৎ যুদ্ধঅপরাধীদের বিচার করতে হবে।ঠিক সে সময় জেলার সময়োপযোগী নাট্যজন ও সাংবাদিকদ প্রায়ত আমিনুল ইসলাম আমিন ভাইয়ের চিত্রনাট্য “রাজাকার ঈসমাল্লারে ধড়” নাটকটি মঞ্চায়ানের জন্য জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সৈয়দ মোসাদ্দেক হোসেন বাবলু ভাইয়ের দৃষ্টি আকর্ষন করলে তৎকালীন দিনাজপুর জেলার গনমানুষের ইচছার অগ্রনী কলম সৈনিক এম আহসান কবির প্রযোজনার আগ্রহে দিনাজপুরের ২ প্রথিতযশা সাংবাদিক শাহ্ আলম শাহী,কাশি কুমার দাস ঝন্টু ও রুস্তম আলী’কে যথা ক্রমে পার্শ নায়ক, ভিলেন,ও নায়কের এবং আফসানা আফরোজ ইমু’কে নাইকার চরিত্রে চিত্রিত করে মঞ্চায়ন করা হয় চলমান সরকারের প্রথম চেতনা যুদ্ধঅপরাধী দের বিচার চাই শীর্ষক মঞ্চ নাটক রাজাকার ঈসমাইল্লারে ধড়”। নাটকটি জনমনে শুধুই সাড়াই জাগাইনি দেশের মুক্তমনা মানুষকে দেশপ্রেম শেখাতে অনান্য ভুমিকা রেখেছে।ঠিক আজ সেই ভুমিকার জন্য আফসানা আফরোজ ইমু নিজের সংসারের যতটুকু সময় দেয়া দরকার তা দিয়ে সাথে সাথে নেমে পরেছেন আজ আমাদের সমাজের গণসচেতনতায় পিছিয়ে পড়া মানুষগুলোকে একটু সচেতনতার আবর্তে আনতে। নিজ উদ্দোগে তিনি গত 26শে মার্চ ২০২০ থেকে তার নিজ অর্থ ব্যায়ে সাধ্যমত সমাজের করোনা ক্লিষট অনুপার্যন মানুষ ও পশু-পাখি বিশেষ করে ঐ সংকটকালের অপোষা রাস্তার কুকুরদের প্রতিনিয়ত সাধ্যমত খাদ্যসেবা দিয়ে গেছেন।এর পরেও তিনি বসে নেই করোনা কালিন এ পরিস্থিতেই প্রতিদিন সকাল দশটায় তার ৫০ জনে ২টো টিম এখনো দিনাজপুর সদর পৌর শহরের মোড়ে মোড়ে দাড়ি দিয়ে যাচেছন করোনা সচেতনতার অমোঘ অনুরোধ,তার এই অমোঘ অনুরোধে বিমোহিত হয়ে পথচারী সচেতন অসচেতন সব শ্রেণীর মানুষ।এক সাক্ষাত কারে তিনি খবর দিনাজপুর কে জানান,এসব আমি করছি গণসচেতনতার জন্য, সরকার,রাজনৈতিক মহল বা দাতা কোন ব্যাক্তি প্রতিষ্ঠানের কাছে আমার কোন চাওয়া-পাওয়া নেই,আগেও ছিল না,আমাকে আল্লাহপাক যেটুকু দিয়েছেন, আমি তাতেই সন্তুস্ট।সবার কাছেই দোওয়া চাই যেন সবার কাছে গণসচেতনতা সৃষ্টির মর্ম কথা যেন শুনিয়ে যেতে পারি।

 

 

 

  • 6
    Shares