ঠাকুরগাঁওয়ে মোহাম্মদপুরে বসতভিটা নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ গুরুতর আহত ২

0
6

 

আব্দুল আউয়াল ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা ১১ নং মোহাম্মাদপুর ইউনিয়ন (মুন্সিপাড়া) বসত ভিটা জমি নিয়ে প্রতিবেশিদেরকে মারপিট করার পর জমি দখল করার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার সকাল ৭/৩০ মিনিটে সদর উপজেলার ১১ মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মুন্সিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আর এমনই অভিযোগ করেন মুন্সিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মোঃ শাহী মিঠু

এ ঘটনায় আহত হয়েছেন শাহী মিঠু (৪০), তার স্ত্রী মল্লিকা(৩৫)

আহত সবাই ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

শাহী মিঠু অভিযোগ করে বলেন, আমার বাপ দাদার আমলের জমি আমি ক্রয় করে নেই। এরপর ওই জমিতে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ফসল আবাদ করি বা ফেলে রাখি আসছিলাম। বর্তমানে ওই জমিতে ঘরবাড়ি নির্মাণ করার পরিকল্পনা চলছে তার বসত ভিটায়।

জমির উপর নির্মিত ঘরবাড়িসহ জমি জোরপূর্বক দখল করার জন্য প্রতিবেশি রহিম উদ্দিন ও তার পরিবারের লোক জন সহ তার লোকজন প্রায় ৬/৭ জন দখল করার চেষ্টা করে আসছিল বলে অভিযোগ শাহী মিঠুর।

শাহী মিঠু বলেন, মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে আমার বাড়ির সামনে ঘর মেরামতের কাজ করা হচ্ছিল। এসময় লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র সঙ্গে নিয়ে প্রতিবেশি রহিম উদ্দিন তার লোকজন এসে বাঁধা দিলে উভয় পক্ষের মাঝে বাকবিতন্ডার সৃষ্টি হয়। এসময় রহিম উদ্দিন ও তার লোকজন আমাকে ও আমার পরিবারের লোকজনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে ও লাঠিসোটা দিয়ে বেধরক পেটায়। এছাড়াও সন্ত্রাসী বাড়ির মহিলাদের শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে।

এ ঘটনায় শাহী মিঠু, তার স্ত্রী মল্লিকা গুরুতর আহত হয়।পরে এবং মল্লিকার বুকের স্তন টি কেটে খেলা হয়।

পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে রহিম উদ্দিন সহ তার লোকজন পালিয়ে যায়। এরপর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

বাড়িতে লোকজন না থাকার সুযোগ কাজে লাগিয়ে আবারও বিকেলে সাড়ে ৩টার দিকে রহিম উদ্দিন ও তার লোকজন বাড়িঘরে হামলা চালায় বলে অভিযোগ শাহী মিঠুর।
এ বিষয়ে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সোহাগ হোসেন তার পরিষদের চৌকিদার বাড়ি পাহারা দেয় এবং নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে।

আহতরা ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসাপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। রহিম উদ্দিন ও তার পরিবারের লোকজনকে নানা ভাবে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে অভিযুক্তরা।

ঘটনা সম্পর্কে কথা বলার জন্য অভিযুক্ত রহিম উদ্দিন মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তাকে পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানার এস আই বিদ্যুৎ বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি; অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

  • 10
    Shares