ঘর ভাঙা মানুষের পাশে ঈদের নামাজ পড়েই ছুঁটলেন দিনাজপুরের ডিসি….

0
0

ঘর ভাঙা মানুষের পাশে ঈদের নামাজ পড়েই ছুঁটলেন দিনাজপুরের ডিসি….

পদ্মা নদীর মাঝিতে মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ‘ঈশ্বর থাকেন ওই ভদ্র পল্লীতে, এখানে তাহাকে খুঁজিয়া পাওয়া যাইবে না।’ কিন্তু কিছু কিছু মানুষ কখনো কখনো ঈশ্বরের ভূমিকা পালন করেন। বিষয়টি অনেকেই অস্বীকৃতি জানালেও যারা বিপদে পড়েন শুধুমাত্র তারাই সহায়তাকারী ব্যক্তিকে ঈশ্বরের আসনে বসান!

গতকাল রাতে দিনাজপুরে হঠাৎ করে প্রচন্ড ঘূর্ণিঝড় শুরু হয়! ঝড়ে ভেঙে যায় প্রায় শতাধিক বাড়িঘর। তার মধ্যে পার্বতীপুরের হাবড়া, হামিদপুর ও হরিরামপুর ইউনিয়ন এবং ফুলবাড়ী উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের অনেক বাড়ি ভেঙে পড়ে।

বিষয়টি দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম এঁর কাছে জানানো হলে তিনি আজ ঈদের নামাজের পরই ওই সব বাড়িতে জেলা প্রশাসকের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও উপজেলা পর্যায়ের জনপ্রতিনিধি এবং কর্মকর্তাদের সাথে নিয়ে সহায়তার হাত বাড়ান।

পার্বতীপুর-ফুলবাড়ী উপজেলায় এক হাজার পরিবারে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ ২ লাখ টাকা বিতরণ করেন।

ঈদের দিনে যেখানে আমরা অনেকেই পরিবার নিয়ে আরাম আয়েশ করে সময় কাটাচ্ছি সেখানে দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক Md Mahmudul Alam ও জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও কর্মচারী, জনপ্রতিনিধিরা মিলে ১০টি গাড়িতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অন্যন্য নজির স্থাপন করে দেখালেন।

বিষয়টি হয়ত অনেকের কাছেই নিয়মিত কাজের মধ্যে হয়েছে বলেও বলতে পারেন। কিন্তু ঈদের দিনে বাংলাদেশের আর কোথাও এমন কোন ঘটনার নজির স্থাপন হয়েছে বলে জানা নেই!

আমাদের যেমন মা বাবা, স্ত্রী সন্তান আছে ঠিক তেমনই প্রশাসনের লোকজনেরও স্ত্রী সন্তান, বাবা মা আছেন। বর্তমান এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে যেখানে অনেক কর্মকর্তা কর্মচারী, জনপ্রতিনিধি তাদের শুধু মাত্র দায়িত্বটুকু পালন করছেন সেখানে ঈদের নামাজ আদায় করেই ঝড়ে ঘর ভাঙা মানুষের পাশে দাঁড়ানোটা সবার থেকে ভিন্নতর এটা মানতেই হবে।

ঈশ্বর যদিও ভদ্র পল্লীতে থাকেন কিন্তু কখনো সখনো তিনি কিছু মানুষরূপী প্রতিনিধিকেও প্রেরণ করেন মানুষের জন্য।

লেখাটি অনেকেই তেলমারা, চামচামী কিংবা অন্য যেকোনভাবে নিতে পারেন! তবে একজন মানুষের ভালো কাজের স্বীকৃতি যদি দিতে ভুলে যাই তাহলে পৃথিবীতে ভালো মানুষ এবং ভালো কাজের সংখ্যা দ্রুত হ্রাস পেতে শুরু করবে।

আজকে ঈদের নামাজ পড়ে যেসকল কর্মকর্তা, কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধিরা পরিবারকে সময় না দিয়ে অসহায় পরিবারকে নিজের পরিবার ভেবে উপকারের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাদের প্রতি আমার অসীম কৃতজ্ঞতা। ভালো থাকবেন আপনারা, ভালো রাখবেন আপনাদের চারপাশ। সবাইকে ঈদ মোবারক…